এক বাঙালি মায়ের কান্না

ফরিদ আহমেদ
 | প্রকাশিত : ১৭ জুলাই ২০২২, ১৬:০৯

[মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ২০০৭ সালে কারাবন্দি দিবসে জরুরি আইনের প্রতিবাদে লেখা একটি কবিতা ]

কিশোরকাল কেঁটেছে অপেক্ষায় আর অপেক্ষায়— যৌবন কেঁটেছে কেঁদে কেঁদে, বার্ধক্য না হয় কাঁটবে আমার অন্ধাকার দেওয়ালে জাতির পিতার ছবি এঁকে।

২৩ বছর কেঁটেছে সংগ্রামে ২১ বছর কেঁটেছে বুক ভাসিয়ে বাকি জীবনটা কাঁটাব বাঙালির বিজয়ের পতাকা আঁকড়ে কোনো হায়েনা যাতে ছিনিয়ে নিয়ে যেতে না পারে।

৪৮-৭১- এ ২৩ বছর কেঁটেছে অপেক্ষায়- কখন ‘জনক’ আসবেন কড়া নেড়ে ঘরে ঢুকে বলবেন- “আমরা মূক্ত”।

৭৫-৯৮ আরও ২৩ বছর কেঁটেছে অপেক্ষায়- বিচারকের দরজায় কড়া নেড়ে নেড়ে কত রাত ভোর করেছি, হয়তো বিচারকের দরজায় ঘুমিয়ে পড়েছি, বিচার হবে ‘জনক’ হত্যার ।

আরও লক্ষ-সহস্র দিবস-রজনী কেটেছে প্রত্যাশায়- আসবে মুক্তি, আসবে গণতšত্র আর প্রতিষ্ঠিত হবে বাঙালির সম্মান।

বাকি জীবনটা কাটাব কারাগারের দেওয়ালে জনকের স্মৃতিগুলো স্পর্শ করে- আর বলব- আমি বাঙালি, বাংলা আমার দেশ- মুজিব জাতির পিতা। একদিন শেষ হবে এই অপেক্ষা, সমগ্র জাতি সেদিন মুক্তির স্বাদে হাসবে- এখন হাসি না কারণ হাসতে মানা ‘এই রাজার রাজত্বে’।

সংবাদটি শেয়ার করুন

ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :