৫১ বছর ধরে মানসম্পন্ন বীজ সরবরাহ করছে ইউনাইটেড সিড স্টোর

আব্দুর রশিদ শাহ্, নীলফামারী
| আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৯:৫৮ | প্রকাশিত : ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:৪৫

স্বাধীনতার পরের বছর থেকেই দেশের কৃষিতে অবদান রাখছে স্বনাম ধন্য প্রতিষ্ঠান ‘ইউনাইটেড সিড স্টোর’। গবেষণা সম্পন্ন উন্নত প্রযুক্তির বীজ শহর কিংবা প্রান্তিক চাষিদের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দিতে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। ১৯৭২ সালের ২২ মে কৃষিবিজ্ঞানী এ.এস.এম কামাল উদ্দিন ঢাকার ১৫ গ্রীন রোডের ‘ইউনাইটেড সিড স্টোর’ প্রতিষ্ঠানটি তার ভাতিজা আবু তাহেরকে উপহার দেয়। সেই থেকে প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার আবু তাহেরের নিরন্তর প্রচেষ্টায় তিলে তিলে গড়ে উঠে আজকের ইউনাইটেড সিড স্টোরের বেশ কয়েকটি গবেষণাগার, অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সংরক্ষণাগার, সর্বাধুনিক প্রযুক্তির বীজ প্যাকিং সিস্টেম। প্রতিষ্ঠানটি সর্বদা ডিলার কিংবা চাষিদের কাছে উন্নত মানের মান সম্পন্ন বীজ সরবরাহ করে আসছে।

হাটি-হাটি পা-পা করে প্রতিষ্ঠানটি ৫১বছরে পদার্পণ করেছে। এ উপলক্ষে উত্তরের কৃষিনির্ভর জেলা নীলফামারীর ৬৮ জনসহ সারাদেশের প্রায় ৮ হাজার জন প্রান্তিক চাষি ও ডিলারদের ৭দিন ব্যাপী মিলন মেলার আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি। ময়মনসিংহের বিদ্যাগঞ্জ চুয়ানিয়া মাটিয়ামতলার ১৬ একরের রিচার্চ অ্যান্ড ডেভলোপমেন্ট সেন্টারটি পরিণত হয় কৃষক ও ডিলারদের লাইভ প্রদর্শীর মিলন মেলায়। সেখানে থাকা চেনা অচেনা প্রায় ৭ শতাধিক উন্নত জাতের সবজির সঙ্গে পরিচয় হয় তারা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড সিড স্টোরের চেয়ারম্যান আবু তাহের, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক আব্দুর রহিম, ইউনাইটেড সিড স্টোরের পরিচালক মোহাম্মদ সেলিম, এন.এ.এম সালাহ্ উদ্দিন, আব্দুল্লাহ্ আল কাজেমীসহ সারা দেশের ৮ হাজারের বেশি প্রান্তিক চাষি ও ডিলার। প্রদর্শনী শেষে সকল ডিলার ও চাষির হাতে আকর্ষণীয় পুরস্কার তুলে দেন প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার কৃষিবিদ আবু তাহের।

এ সময় নীলফামারীর সৈয়দপুরের বীজ ডিলার আবু বকর সিদ্দিক বলেন, আমি ৩৭ বছর ধরে ইউনাইটেড সিড স্টোরের সঙ্গে কাজ করছি। এখানকার বীজগুলো অনেক উন্নত। কৃষকরা এসে ইউনাইটেড সিড স্টোরের বীজ খুঁজে। আমি নিজেও ইউনাইটেড সিড স্টোরের বীজ দিয়ে ফসল ফলাই।

নীলফামারী সদরের প্রান্তিক চাষি আশিক বলেন, আমি এই প্রথম ময়মনসিংহে এসে অবাক হয়ে গেছি। এখানে ১৬ একর জমিতে রিচার্চ অ্যান্ড ডেভলোপমেন্ট সেন্টার গড়ে উঠেছে। প্রায় ৭ শতাধিক বিজের লাইভ ট্রায়েল দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে গেছি। যদি দেশের সকল চাষি ইউনাইটেড সিড স্টোরের বীজ ব্যবহার করেন তাহলে কৃষিতে একদিন সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পরিণত হবে।

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান বলেন, চাচার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দেশের চাষিদের জন্য গবেষণা করে উন্নত মানের বীজ সরবরাহ করে আসছি। আজকে প্রতিষ্ঠানটি ৫১ বছরে পদার্পণ করেছে। এ উপলক্ষে দেশের ৮ হাজার ডিলার ও প্রন্তান্তিক চাষিদের মাঝে আমাদের গবেষণা করা প্রায় ৭ শতাধিক ফসলের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছি। কৃষিতে অর্থনৈতিক অবদান রাখতে ইউনাইটেড সিড স্টোর নিরলস পরিশ্রম করছে।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭২ সালে চাচা কৃষিবিজ্ঞানী মরহুম এ.এস.এম কামাল উদ্দিন আমাকে প্রতিষ্ঠানটি উপহার দিয়ে বলেন এই প্রতিষ্ঠান থেকে যাতে কোনো ধরনের মরা বীজ বিক্রি করা না হয়। কৃষকরা যাতে এই বীজ থেকে লাভবান হয়। সেই থেকে আজ অবধি কৃষকদের দ্বারপ্রান্তে গবেষণা করে উন্নত মানের বীজ সরবরাহ করে আসছি।

তিনি আরও বলেন, শহরকেন্দ্রিক মানুষদের কৃষির আওতায় আনতায় আনতে ঘরে ঘরে গোবর পৌঁছে দেয়ার পাশাপাশি উন্নত মানের ফুল, ফলসহ বিভিন্ন প্রজাতির বীজও সরবরাহ করেছি। সকলের দোয়ায় আজকের এই ইউনাইটেড সিড স্টোর।

অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন কান্ট্রি ম্যানেজার মো. আমজাদ হোসাইন।

(ঢাকাটাইমস/৩০জানুয়ারি/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :