স্বস্তি মিলছে না বাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ মে ২০২৩, ১৩:৪৯ | প্রকাশিত : ২৬ মে ২০২৩, ১৩:১১

নিত্যপণ্যের দামে ঊর্ধ্বগতিতে কোনোভাবেই বাজারে স্বস্তি মিলছে না মানুষের। মাছ, মাংস, সবজিসহ সব পণ্যই আকাশছোঁয়া। তার ওপর শুক্রবার এলে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম আরও বেড়ে যায়।

শুক্রবার রাজধানীর শান্তিনগর বাজার ও রামপুরা বাজার ঘুরে এমন চিত্র পাওয়া গেছে।

ক্রেতারা বলছেন, শুক্রবার এলেই ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট সক্রিয় হয়ে থাকে। ফলে দাম দ্রুত বেড়ে যায়। বিক্রেতারা বলছেন, তারাও বেশি দামে কিনেন। ফলে বেশি দামে বিক্রি করেন।

আরও পড়ুন>> ঈদের আগে অস্থির মসলার বাজার

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এক এক বাজারে এক এক দাম। টমেটো প্রতি কেজি ৫০ থেকে ৮০ টাকা, কাঁচামরিচ ২৫০ টাকা, পেঁপে ৭০ থেকে ৮০ টাকা, শসা ৬০ থেকে ৭০ টাকা, পটল ৮০ থেকে ৯০ টাকা, কাঁকরোল ১০০ টাকা, কচুর লতি ৮০ থেকে ১০০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ থেকে ৭০ টাকা, গাজর ১০০ টাকা, বেগুন ৭০ থেকে ৮০ টাকা, বরবটি ৮০ থেকে ৯০ টাকা, ঝিঙে ৭০ থেকে ৮০ টাকা, মুলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, করলা ৯০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া কাঁচাকলা হালি প্রতি ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রতি চির ৩০ থেকে ৪০ টাকা, লাউ প্রতিটি ৭০ থেকে ১০০ টাকা, জালি কুমড়া প্রতিটি ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শান্তিনগর বাজারের সবজি বিক্রেতা প্রলয় ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘বাজারে সবকিছুর দাম। এজন্য সবজির দামও বেশি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঢাকায় সবজি আসতে আসতে দাম বেড়ে যায়। আর গাড়িভাড়া যদি কমানো হয় তো আশা করা যায় কিছুটা দাম কমবে বাজারের সব পণ্যেরই।’

মাছ বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি রুই মাছ ২৮০ থেকে ৩২০ টাকা, পাবদা মাছ ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, পাঙাস ২২০ থেকে ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ২৮০ টাকা, শিং মাছ ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, চাষের কই ৩০০ টাকা, বড় টেংরা ৭০০ টাকা, কাতল ৩৫০ টাকা, চিংড়ি ৭০০ টাকা, শোল মাছ ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রামপুরা বাজারে মাছ কিনতে আসা ক্রেতা দোলাল হোসেন ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘মাছ, মাংস, সবজিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অতিরিক্ত। কোনো কিছু কিনতে গেলে এক বারের জায় গায় দশ বার পকেটে হাত দিয়ে টাকার হিসাব মিলাতে হয়। তারপর বুঝেশুনে কিনি।’

বাজারে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ২২০ থেকে ২৪০ টাকা, সোনালি মুরগি ৩৩০ টাকা, লেয়ার (লাল) ৩৪০ টাকা, গরুর মাংস ৮০০ টাকা ও খাসির মাংস ১১০০ থেকে ১১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতিটি লাল ডিম ১৩ টাকা, এক হালি ৫০ টাকা ও ডজন ১৪৫ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া ফার্মের লাল ডিম প্রতিটি ১২ টাকা, এক হালি ৪৫ টাকা এবং ডজন ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রামপুরা বাজারে জেরিন নামে এক ক্রেতা ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘বাজারের এতো খারাপ অবস্থা দেখে আর ভালো লাগছে না। কোনো পণ্যের দাম কমেনি। বরং দিন দিন বেড়েই চলছে। যে পণ্য একবার বাড়ে সেই পণ্য আর কমে না। এ কেমন সিস্টেম?

(ঢাকাটাইমস/২৬মে/পিআর/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অর্থনীতি এর সর্বশেষ

বাংলাদেশকে ‘এভিয়েশনের হাব’ হি‌সে‌বে দেখতে চায় এয়ারবাস: সালমান এফ রহমান

খাতুনগঞ্জে পচা পেঁয়াজের কেজি ২৫ টাকা, ভালো পেঁয়াজ ৫০

বাজেটে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও সামাজিক সুরক্ষায় বরাদ্দ রাখার আহ্বান শিশুদের

জ্বালানি সংকট ও আমদানি নিয়ন্ত্রণে চাপে বাংলাদেশ: বিশ্বব্যাংক

দেশের অর্থনীতির গভীরতা বাড়াতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

স্বর্ণের দাম ভরিতে বাড়লো ১৭৫০ টাকা

বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক, এসএমই ফাউন্ডেশন ও চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বারের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

এআইওটি বেজড স্মার্ট নতুন তিন মডেলের ফ্রিজ উন্মোচন করলো ওয়ালটন

লিগ্যাসি ফুটওয়ার, আলিফ ইন্ড্রাস্ট্রিজ শেয়ার দরে সমানে কারসাজি, জড়িত কারা?

কমিউনিটি ব্যাংকের টানা তৃতীয়বার ইনফোসিস-ফিনাকল ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড অর্জন

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :