ইরানের হামলার আশঙ্কা

ইসরায়েলে মার্কিন কূটনীতিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১২ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৪৩ | প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৩৮

ইসরায়েলে ইরানের হামলার আশঙ্কায় দূতাবাসের কর্মীদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। কর্মীদের বৃহত্তর জেরুজালেম, তেল আবিব বা বেরশেবা এলাকার বাইরে ভ্রমণ না করতে বলা হয়েছে।

ইরান ১১ দিন আগে সিরিয়ায় তার কনস্যুলেটে হামলার জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করে প্রতিশোধ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। ওই হামলায় ১৩ জন নিহত হয়।

ইসরায়েল কনস্যুলেটে হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে এর পেছনে ইসরায়েল জড়িত বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন>> ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ইসরায়েলে হামলা চালাবে ইরান!

কনস্যুলেটে হামলায় নিহতদের মধ্যে সিরিয়া ও লেবাননে ইরানের এলিট কুদস ফোর্সের একজন সিনিয়র কমান্ডার এবং অন্যান্য সামরিক ব্যক্তিত্বও রয়েছেন।

গাজার যুদ্ধ ঠেকাতে কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রাখার সময়ে এই হামলা হয়েছে।

বুধবার ভাষণ দেওয়ার সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে ইরান একটি ‘উল্লেখযোগ্য আক্রমণ’ শুরু করার হুমকি দিচ্ছে। তিনি ইসরায়েলকে সমর্থন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, তার সরকার যেকোনো নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রস্তুত। সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, “আমরা প্রতিরক্ষামূলক এবং আক্রমণাত্মক উভয়ভাবেই ইসরায়েল রাষ্ট্রের সমস্ত নিরাপত্তা প্রয়োজন মেটাতে প্রস্তুত।”

মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন অভিযানের দায়িত্বপ্রাপ্ত কমান্ডার এরিক কুরিলা নিরাপত্তা হুমকি নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনার জন্য ইসরায়েলে গেছেন।

পেন্টাগন বলেছে, সফরটি নির্ধারিত ছিল। কিন্তু ‘সাম্প্রতিক ঘটনাবলির কারণে’ এগিয়ে আনা হয়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ানের সঙ্গে এক ফোনালাপের পর লর্ড ক্যামেরন বলেছেন যে, তিনি ‘স্পষ্ট করেছেন... যে ইরান যেন মধ্যপ্রাচ্যকে বৃহত্তর সংঘাতের দিকে টেনে না নেয়। বলেন, “আমি আরও সহিংসতার দিকে নিয়ে যাওয়ার ভুল গণনার সম্ভাবনা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।”

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন চীন, সৌদি আরব এবং তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছেন এই যুক্তি দিতে যে আরও সংঘাত কারও স্বার্থে নয়।

এই আহ্বানের পর চীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে মধ্যপ্রাচ্যে গঠনমূলক ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানায়। পাশাপাশি দামেস্কে ইরানের কনস্যুলেট ভবনে ইসরায়েল কর্তৃক ব্যাপকভাবে হামলা চালানোর নিন্দা জানায়।

কোনো প্রতিশোধমূলক আক্রমণ কী রূপ নেবে বা এটি সরাসরি ইরান থেকে বা তার কোনো প্রক্সির মাধ্যমে আসবে তা স্পষ্ট নয়।

রবিবার একজন ইরানি কর্মকর্তা সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে ইসরায়েলের দূতাবাসগুলি ‘আর নিরাপদ নয়। একটি কনস্যুলেট ভবন সম্ভাব্য লক্ষ্যবস্তু হতে পারে।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট তার মার্কিন প্রতিপক্ষকে বলেছেন, ইসরায়েলি ভূখণ্ডে যেকোনো সরাসরি ইরানি আক্রমণ হলে ইরানের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের যথাযথ প্রতিক্রিয়া প্রয়োজন।

বৃহস্পতিবার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে, স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেছিলেন যে তিনি নির্দিষ্ট মূল্যায়ন প্রকাশ করবেন না। তবে যোগ করেন, “স্পষ্টতই আমরা মধ্যপ্রাচ্যে এবং বিশেষত ইসরায়েলে হুমকির পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করছি।”

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তর ইসরায়েলের জন্য তার ভ্রমণ পরামর্শও আপডেট করেছে, যাতে বলা হয়েছে, দেশটির সরকার ইরান থেকে ইসরায়েলি ভূখণ্ডে আক্রমণের সম্ভাবনা উত্থাপন করেছে এবং এ ধরনের আক্রমণ আরও ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারে।

৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামাসের নেতৃত্বাধীন হামলার পর থেকে পররাষ্ট্র দপ্তর ইসরায়েলের বড় অংশ এবং অধিকৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলে ভ্রমণের বিষয়ে সতর্ক করেছে।

ফ্রান্স একইভাবে তার নাগরিকদের আসন্ন দিনে ইরান, লেবানন, ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিনি অঞ্চলে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকার জন্য সতর্ক করেছে। সূত্র বিবিসি।

(ঢাকাটাইমস/১২এপ্রিল/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :