‘অপু-বাপ্পীর আংটি বদল’ আগামী সপ্তাহে

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:৫৯ | প্রকাশিত : ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:০৯

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকাদের অন্যতম অপু বিশ্বাস। তার সাবেক স্বামী দেশের সবচেয়ে বড় সুপারস্টার শাকিব খান।  ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে হয়েছিল তাদের। কিন্তু ২০১৭ সালের নভেম্বরে সুপারহিট জুটির বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছিল ঢাকঢোল পিটিয়ে। গুঞ্জন রয়েছে, এই ডিভোর্সের নেপথ্যে ছিলেন আর এক তারকা বাপ্পী চৌধুরী। রসালো এ ঘটনা নিয়ে সে সময় তুমুল আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছিল। সেই বাপ্পীর সঙ্গে আংটি বদল হতে যাচ্ছে নায়িকা অপু বিশ্বাসের। তাও আবার শাকিব খানের শুটিং বাড়ি ‘জান্নাত’-এ।

তবে এমন চমকপ্রদ ঘটনাটি বাস্তবে ঘটছে না। অপু-বাপ্পীর এই আংটি বদলের দৃশ্য রুপালি পর্দার জন্য। দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’ ছবিতে জুটি বেঁধেছেন তারা। দুই তারকার আংটি বদল হবে সেই ছবির শেষ দৃশ্য। আগামী সপ্তাহে যেকোনো একদিন এই অংশটুকুর শুটিং হবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন পরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাস। ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’-এর মাধ্যমে প্রথমবার একসঙ্গে কাজ করছেন আলোচিত জুটি অপু বিশ্বাস ও বাপ্পী চৌধুরী।

এই ছবিটি হচ্ছে ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’-এর সিক্যুয়েল। প্রথমটিও পরিচালনা করেছিলেন দেবাশীষ বিশ্বাস। সেখানে নায়ক-নায়িকা হিসেবে দেখা গিয়েছিল তখনকার সুপারহিট জুটি রিয়াজ ও শাবনূ কে। ১৯৯৬ সালে অমর নায়ক সালমান শাহ মারা যাওয়ার পর রিয়াজ-শাবনূরের জুটি ছিল সবচেয়ে বেশি সমাদ্রিত। এ জুটির সবগুলো ছবি ব্যবসাসফল। সেই ধারাবাহিকতায় সুপারহিটের তকমা লেগেছিল ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’-এর গায়েও। তারই দ্বিতীয় কিস্তিতে জুটি বেঁধেছেন অপু ও বাপ্পী।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে এই ছবির শুটিং শুরু হয়েছিল। শেষ হতে যাচ্ছে প্রায় এগারো মাস পরে। এই ছবিতে জুটি বাধার আগে থেকেই অপু-বাপ্পীকে নিয়ে ঢালিউডপাড়ায় টুকটাক ফিসফাস। ২০১৭ সালের অক্টোবরে ছেলে আব্রাম খান জয়কে গৃহপরিচারিকার কাছে রেখে অপু কলকাতায় ডাক্তার দেখাতে গেলে শাকিব খান সাংবাদিকদের সামনে অভিযোগ করেছিলেন, ‘ডাক্তার দেখাতে নয়, অপু তার বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে ঘুরতে গিয়েছিল।’ এই কথিত বয়ফ্রেন্ডকে খুঁজতে গিয়ে সে সময় বাপ্পীর নাম বেরিয়ে পড়েছিল।  

এমন গুঞ্জনের পর অপু দাবি করেছিলেন, বাপ্পী তার ছোট ভাইয়ের মতো। অন্যদিকে বাপ্পীও জানিয়েছিলেন, অপুকে তিনি দিদি ডাকেন। কিন্তু তাতে থেমে থাকেনি সমালোচনা। মন গলেনি শাকিব খানের। আইনজীবীর মাধ্যমে অপুর নিকেতনের বাসার ঠিকানায় তিনি তালাকের নোটিশ পাঠান। পরে চারিদিকে তোলপাড় শুরু হলে তারকা এ জুটির সংসার টেকাতে ব্যর্থ উদ্যোগ নিয়েছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। দুই দফায় তারা সালিশি বৈঠকে বসেছিল। কিন্তু সেখানে অপু উপস্থিত থাকলেও দেখা মেলেনি শাকিব কিংবা তার পরিবারের কারও।

হতাশ অপু পরে শাকিবের নেওয়া তালাকের সিদ্ধান্ত মেনে নেন। গত বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি তাদের তালাক কার্যকর হয়। ঠিক সেই সময় ‘শ^শুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’-এর প্রস্তাব নিয়ে অপুর কাছে যান পরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাস। যাকে জড়িয়ে এতকিছ, সেই বাপ্পী চৌধুরী নায়ক জেনেও এই ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হন নায়িকা। একটি সাক্ষাৎকারে ওই সময় অপু জানিয়েছিলেন, তার কাছে অভিনয়টাই মুখ্য। তাছাড়া যার নাম জড়িয়ে তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আনা হচ্ছে সেগুলোর কোনোটাই সত্যি নয় বলে দাবি করেন তিনি।

অন্যদিকে পরিচালক দেবাশীষের প্রস্তাবে কোনো আপত্তি ছিল না নায়ক বাপ্পীর দিক থেকেও। যার কারণে অপু-বাপ্পীকে একসঙ্গে পর্দায় আনার পথে পরিচালক দেবাশীষের কোনো বাধা ছিল না। তাছাড়া ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’-কে ক্যারিয়ারের অন্যতম টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে নিয়েছিলেন অভিনেতা। তাই এমন সুযোগ তিনি হাতছাড়া করতে চাননি। ব্যপক আলোচনা-সমালোচনা সত্ত্বেও তাই জুটি বেঁধেছিলেন অপু বিশ্বাসের সঙ্গে।

এদিকে গত এক বছর ধরে শাকি খান-অপু বিশ্বাস দুজনেই একা। তবে একমাত্র ছেলে জয়ের সৌজন্যে মাঝে মধ্যে একসঙ্গে দেখা যায় দুই তারকাকে। এইতো গত ডিসেম্বরে ছেলেকে রাজধানীর নামকরা একটি স্কুলে ভর্তি করাতে নিয়ে গিয়েছিলেন শাকিব-অপু। সেখানে অভিভাবকদের নামের জায়গায় তাদের দুজনের নামই লেখা হয়। এছাড়া ছেলেকে দেখতে যাওয়া, তার জন্য পোশাক আশাক কেনা, বেড়াতে নিয়ে যাওয়া- এমন নানা কাজে অপুর মুখোমুখি হতে হয় শাকিবকে।

ঢাকা টাইমস/১৮ জানুয়ারি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :