সিলগালা কারখানার যন্ত্র নিয়ে আবার নকল পণ্য প্রস্তুত!

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৪৯ | প্রকাশিত : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০:১৬

জনসন, ইউনিলিভারসহ বিভিন্ন নামি  কোম্পানির ‘শিশুদের প্রডাক্ট’ নকল  করে বাজারে বিক্রি করার এক চক্রকে আবার ধরেছে র‌্যাব। এই চক্রের কেরানীগঞ্জোর কারখানা  সম্প্রতি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছিল। সেখান থেকে রাতের বেলা মালামাল সরিয়ে আবার নকল পণ্য তৈরি করছিল তারা।

শীত সামনে রেখে শিশুদের যেসব নকল কসমেটিকস সামগ্রী চক্রটি তৈরি করছিল, বিশেষজ্ঞরা বলছে, এসব কসমেটিকস ব্যবহারে শিশুদের ত্বকের ক্যান্সারসহ নানান রোগ হতে পারে।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর চকবাজারের আনসার উল্লাহ প্লাজায় অভিযান চালিয়ে এ চক্রের মূল হোতাসহ তিনজনকে আটক করে র‌্যাব। বিকাল থেকে চলা অভিযান শেষ হয় রাত সাতটায়। র‌্যাব-১০ ও বিএসটিআইয়ের যৌথ উদ্যোগে পরিচারিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম।

অভিযানে কারখানার মালিক তরিকুল ইসলামসহ তার দুই সহযোগীকে আটক করা হয়।

সারওয়ার আলম ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘চকবাজারে অভিযানে এসে দুঃখজনক বিষয় হলো কিছু ব্যবসায়ী বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কসমেটিকস সামগ্রী নকল তৈরি করছিল। অভিযানে আমরা ১০ রকমের নকল কসমেটিকস পেয়েছি। এ ছাড়া এখানে বেশ কয়েকটি গোডাউন ও কারখানার ছিল।’

দুই সপ্তাহ আগে কেরানীগঞ্জে প্রতিষ্ঠানটির পাঁচটি কারখানা সিলগালা করে দেওয়া হয়েছিল বলে জানান সারওয়ার আলম। তিনি বলেন, ‘তখন অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকজনকে শাস্তি দেওয়া হয়েছিল এবং তাদের নকল সব প্রডাক্ট জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছিল। কিন্তু এরপরও তারা রাতের অন্ধকারে সিলগালা প্রতিষ্ঠান থেকে মেশিন বের করে নিয়ে গেছে। আমরা আজ তাদের চকবাজারে এসে পেয়েছি। আমরা পরীক্ষা করছি আর কোথায় কোথায় তাদের এমন নকল কারখানা ও মালামাল আছে।’

সারা দেশে নকল কসমেটিকস সাপ্লাই দেওয়া হয় জানিয়ে সারওয়ার আলম বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি তারা এখানে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কসমেটিকস নকল তৈরি করে সারা দেশে বিক্রি করে। এসব কসমেটিকস ব্যবহার  ত্বকের ক্যান্সার থেকে শুরু করে নানান রোগের প্রধান কারণ হচ্ছে।’

নকল পণ্য তৈরিকারকরা  সিলগালা ভেঙে মালামাল চুরির বিষয়ে সারওয়ার আলম বলেন, ‘এটা একটি সংঘবদ্ধ চক্র। এরা এত বেশি বেপরোয়া যে কেরানীগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করে কয়েকজনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি, কারাদণ্ড ও মালামাল জব্দ করার পরও তারা সেখানে গিয়ে মেশিনগুলো নিয়ে চলে গেছে। এটা এক ধরনের চ্যালেঞ্জ আমাদের সঙ্গে। আমরা আজ তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসব।’

(ঢাকাটাইমস/১৩ডিসেম্বর/এসএস/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :