গান্ধীর আশ্রম নয়, তাজমহলেই মন মেলানিয়ার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:৩০ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:৫৭

মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভারত সফরের প্রাক্কালে জোর কানাকানি- মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর চেয়ে তাজমহলের টানই কি বেশি ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের কাছে? স্থির ছিল, আহমেদাবাদ বিমানবন্দরে নেমে সোজা সাবরমতী আশ্রমে যাবেন ট্রাম্প দম্পতি।

মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর স্মৃতিবিজড়িত আশ্রমে আধ ঘণ্টা কাটিয়ে মোতেরা স্টেডিয়ামে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তারা।

তারপর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও তার সঙ্গীরা তাজমহল দর্শনে আগ্রায় রওনা হবেন। তবে সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, শেষ মুহূর্তে পরিবর্তন না-হলে ট্রাম্প দম্পতির পূর্ব নির্ধারিত সাবরমতী আশ্রম সফর বাতিল হতে পারে। শনিবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানী। ট্রাম্পের না-আসার ইঙ্গিত পাওয়ার পর এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে হোয়াইট হাউস চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে এবং তা শীঘ্রই ভারত সরকারকে জানানো হবে।

কেন সাবরমতী আশ্রমের অনুষ্ঠান বাতিল করার কথা ভাবছে ওয়াশিংটন? কূটনৈতিক সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, প্রথম কারণটি হলো, মেলানিয়া ট্রাম্প সূর্যাস্তের সময়ে তাজমহল দেখতে উদ্গ্রীব। আহমেদাবাদে বেশি সময় কাটালে যদি বিমানে আগ্রা পৌঁছতে দেরি হয়। এজন্য সূর্য অস্ত যাওয়ার আগেই তাজমহলে পৌঁছতে চান বলে জানিয়েছেন মেলানিয়া। সম্ভবত তাই আহমেদাবাদে অনুষ্ঠানের সময় কাটছাঁট করার সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে হোয়াইট হাউস।

অন্য কিছু কারণেও এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। এক সপ্তাহ আগেই গুজরাটে গিয়েছেন মার্কিন গোয়েন্দারা। সবদিক দেখে সাবরমতী আশ্রম প্রিজার্ভেশন অ্যান্ড মেমোরিয়াল ট্রাস্টকে তারা অনুরোধ করেছিলেন, নিরাপত্তার কারণে এক দিন আগেই আশ্রম বন্ধ করে দিতে। সূত্রের খবর, এই শর্তে রাজি হননি ট্রাস্টের সদস্যেরা। এছাড়া, আশ্রমের সামনের চত্বরটা বাঁধানো নয়, নরম মাটির। আশ্রমের কাছে পর্যন্ত ট্রাম্পের কনভয় পৌঁছবে না, সেক্ষেত্রে অনেকটাই হেঁটে যেতে হবে তাদের। ফলে মেলানিয়ার (বিশেষত তিনি যে ধরনের পয়েন্টেড হিল পরেন) হোঁচট খেয়ে পড়ার সম্ভাবনা দেখছেন মার্কিন কর্তারা।

তবে সাবরমতী যদি নাও যাওয়া হয়, বাকি অনুষ্ঠানকে সফল করতে আহমেদাবাদে সাজো সাজো রব।

এই অনুষ্ঠান নিয়ে বেশ সরব ট্রাম্পও। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি শুনেছি এক কোটি মানুষ হবে (আহমেদাবাদে)। ওরা জানিয়েছেন, বিমানবন্দর থেকে বিশ্বের বৃহত্তম স্টেডিয়াম পর্যন্ত ৬০ লক্ষ থেকে ১ কোটি মানুষ থাকবেন’। এই সংখ্যাটি ট্রাম্প কোথা থেকে পেলেন, তা নিয়ে অবশ্য নীরব রয়েছে ভারত।

গুজরাট সরকার সূত্রের খবর, আহমেদাবাদের জনসংখ্যা প্রায় ৭০ লক্ষ। বিমানবন্দর থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত ২২ কিলোমিটারের রাস্তায় এক থেকে দু’লক্ষ মানুষকে দাঁড় করানোর প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। শিক্ষার্থীদের হাজির করতে সমস্ত স্কুল-কলেজকে অনুরোধ করা হয়েছে। যোগাযোগ করা হয়েছে বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠনগুলির সঙ্গেও।

নিরাপত্তার প্রশ্নটি যেহেতু বড়, তাই রাস্তার দু’ধারে দাঁড়ানোর জন্য লোক বাছাই করে, পরিচয়পত্র খতিয়ে দেখে ‘পাস’ দেওয়ার কাজ চলছে। তবে এই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় খোলা জিপে নয়, বুলেটপ্রুফ কাচের লিমুজিনের ভিতর থেকেই হাত নাড়বেন ট্রাম্প।

ঢাকা টাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :