নোয়াখালীতে স্কুলছাত্র হত্যায় তিনজনের যাবজ্জীবন

নোয়াখালী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:৫৯

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় স্কুলছাত্র আবু সাকের ওরফে শাহিন হত্যা মামলার রায় দেয়া হয়েছে। এতে তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। এ মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় এক নারী আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। বুধবার বিকালে নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ সালাহ উদ্দিন আহাম্মেদ এক জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের মাইজদীপুর গ্রামের আবদুল মোতালেব দুলাল ও একই এলাকার আবদুল কুদ্দুস মাখন। এই দুজনকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা ও আজিজপুর গ্রামের মোহছেন আলী ফারুককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। রায় ঘোষণার সময় আসামি আবদুল কুদ্দুস মাখন উপস্থিত ছিলেন। বাকি দুই আসামি পলাতক রয়েছেন।

নোয়াখালী জেলা জজ আদালতের পিপি গুলজার আহাম্মেদ জুয়েল শাহিনের মামলার রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের পরিবার ও আদালত সূত্রে জানা যায়, কুয়েত প্রবাসী আবদুল মোতালেব দুলালের দুই সন্তানকে তার বাড়িতে প্রাইভেট পড়াত আবু সাকের ওরফে শাহিন। তখন মোতালেবের স্ত্রীর সঙ্গে গৃহশিক্ষক শাহিনের অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে কুৎসা রটায় মোতালেবের ভাইয়ের স্ত্রী। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। বিষয়টি প্রবাসে অবস্থানরত মোতালেবকেও জানানো হয়। পরে দেশে ফেরেন মোতালেব। তিনি ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টার দিকে গৃহশিক্ষক শাহিনকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে অন্য দুই আসামির সহযোগিতায় কুপিয়ে হত্যা করে। পরে লাশ আবদুল মোতালেবের বাড়ির ২০০ গজ পূর্বে ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় শাহিনের বাবা গত ৯ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা করেন। মামলার পর পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

বাদীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন আদালতের পিপি গুলজার আহাম্মেদ জুয়েল। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আবদুল হক।

(ঢাকাটাইমস/২৬ফেব্রুয়ারি/কেএম/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :