ময়মনসিংহে কোরআনে হাফেজদের মাঝে ঈদ উপহার

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ মে ২০২০, ২০:৪১

বিশ্বব্যাপী করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও মসজিদে নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের উপস্থিতি সংক্ষিপ্ত করা হয়। তাই এবার বেশিরভাগ মসজিদে মুসল্লির উপস্থিতি হয়নি বললেই চলে। খতমে তারাবি পড়ানো থেকে বঞ্চিত ও বেকার হয়ে পড়া ময়মনসিংহের কোরআনে হাফেজদের করুণ পরিস্থিতির বিষয়টি চোখে পড়ে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামানের।

করোনা মহামারির মধ্যে পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে এসব অসহায় এবং আর্থিকভাবে অনটনে পড়া কোরআনে হাফেজ এবং সংসারে থাকা অন্যদের মুখে হাসি ফোটাতে পুলিশ সুপার এগিয়ে এসেছেন। ১৬০ জন কোরআনে হাফেজের তালিকা করে তাদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

একইসঙ্গে সমাজের তৃতীয় লিঙ্গ বা হিজড়া সম্প্রদায়ও বর্তমান পরিস্থিতিতে একেবারে অসহায় হয়ে পড়ে। তালিকা করা হয় হিজড়া সম্প্রদায়ের ১২৬ জনের। শনিবার সকালে পুলিশ সুপারের নির্দেশে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে কোরআনে হাফেজ ও হিজড়াদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতার পাশাপাাশি পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামানের নির্দেশে সমাজের নিম্নবিত্ত, শ্রমজীবি কর্মহীন, বেকার হয়ে পড়া, দিন এনে দিন খাওয়া মানুষদের খুঁজে পর্যায়ক্রমে সহায়তা করে আসছে জেলা পুলিশ। বস্তিবাসী, অসহায়, অস্বচ্ছল, দিন এনে দিন খাওয়া, কর্মহীন, শ্রমিক, বেদে পরিবার, নাপিত, নৌকা মাঝি, এতিমখানার এতিম, পঙ্গু, স্বামীহারা অসহায়দের খুঁজে খুঁজে তালিকা করে তাদের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছেন।

ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দ বলেন, শুধু করোনাকালীন সময়ে নয়, পুলিশ সব সময় অসহায়দের সহায়তা করে আসছে। এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, ঈদকে সামনে রেখে তারাবি পড়ানো বঞ্চিত কোরআনে হাফেজ, হিজড়া, এতিমদের সহায়তা করা হচ্ছে। এছাড়াও করোনা পরিস্থিতিতে কারো কাছে পরিচয় দিয়ে খাদ্য সহায়তা নিতে না পারা অসহায়দের পুলিশ গোপনে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছে।

(ঢাকাটাইমস/২৩মে/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :