ঈদে দুই হাজার পরিবারে আ.লীগ নেতা লিটনের সহায়তা

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৭ মে ২০২১, ২১:২৫

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দুই হাজার কর্মহীন পরিবারে নগদ ৫০০ করে দশ লাখ টাকা বিতরণ শুরু করেছেন আ.লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ লিটন। শুক্রবার আবুল কালাম আজাদ লিটনের পক্ষে তার পিতা বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবু সাঈদ এই কার্য়ক্রমের উদ্ভোধন করেন। তার নিজ ইউনিয়নের আনাইলবাড়ী, আরাইপাড়া, আঠারদানা, কেশবপুর, বিলগজারিয়া, কাহেতারা এবং বুধিরপাড়া গ্রামে অর্থ বিতরণ শুরু করা হয়েছে।

পর্যায়ক্রমে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার বাকি পরিবারে এই অর্থ বিতরণ করা হবে বলে জানা গেছে।

আবুল কালাম আজাদ লিটন গত বছরও ২ হাজার দরিদ্র পরিবারের মধ্যে নগদ ১০ লক্ষ টাকা বিতরণ করেন। এছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন ১৫শ পরিবারে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ লিটার তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ ১ কেজি লবণ ও ১টি করে সাবান বিতরণ করেন। এছাড়া আবুল কালাম আজাদ লিটন পত্রিকা বা ফেসবুকের মাধ্যমে কোন অসুস্থ ও অসহায় পরিবারের দুরাবস্থার খবর পেলে প্রতিনিয়ত তাদের নগদ অর্থ সহায়তা দিয়ে থাকেন।

আবুল কালাম আজাদ লিটন মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও হংকং শাখা আওয়ামী লীগের সভাপতি। দুই যুগের বেশি সময় ধরে তিনি চীনের প্রাদেশিক শহর হংকংয়ে সপরিবারের বসবাস করে ব্যবসা করছেন। ব্যবসার প্রয়োজনে হংকং থাকলেও কয়েক মাস পরপর দেশে এসে সক্রিয় রাজনীতি ও জনসেবায় অংশ নিয়ে থাকেন।

বর্তমানে তিনি হংকংয়ে অবস্থান করলেও মির্জাপুর উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তার এই কাজে সহযোগিতা করছেন। এছাড়া তার পক্ষে বাড়ি বাড়ি ঘিয়ে নগদ অর্থ পৌঁছে দিচ্ছেন বহুরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জুলহাস তালুকদার, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক খোকন, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা টুটুল চৌধুরী, বহুরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ওয়াসিম আকরাম, সম্পাদক লিটন মাহমুদ, যুবলীগ নেতা নাদিম প্রমুখ।

আবুল কালাম আজাদ লিটন জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সারাদেশের মানুষ কর্মহীন হয়ে ঘরে রয়েছেন। এর মধ্যে শুরু হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। ঈদুল ফিতরও আসন্ন। কর্মহীন নিম্ন আয়ের মানুষ যাতে ঈদে সামান্য হলেও তাদের পছন্দের কেনাকাটা করতে পারে, সেই চিন্তা থেকে তিনি তার ব্যক্তিগত অর্থ বিতরণ করছেন।

বহুরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জুলহাস তালুকদার জানান, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে নিজ নিজ এলাকার গরিব অসহায় পরিবারের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। খামের ভিতরে ৫শ টাকা করে ভরে প্রত্যেক পরিবারে তারা পৌঁছে দিচ্ছেন। এভাবে উপজেলার ২ হাজার পরিবারে ১০ লাখ টাকা তারা পৌঁছে দেবেন বলে জানিয়েছেন।

আবুল কালাম আজাদ লিটন উপজেলার শতশত গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার খরচ, অসুস্থ ও অসহায় মানুষকে আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি সামাজিক এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানেও অনুদান দিয়ে দিয়ে থাকেন। এছাড়া জনদুর্ভোগ লাগবে ব্যক্তিগত অর্থায়নে এলাকার রাস্তার উন্নয়ন ও সংস্কারও করে থাকেন তিনি। এতে মির্জাপুর উপজেলায় তিনি গরিবের বন্ধু হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন।

এ ব্যাপারে আবুল কালাম আজাদ লিটন বলেন, কম খেয়ে হলেও সকলকে নিয়ে মিলেমিশে থাকার মাঝেই আনন্দ। পবিত্র মাহে রমজান ও ঈদুল ফিতরে সবাই যেন কমবেশি আনন্দ উপভোগ করতে পারে- সেই লক্ষে তার নিজ সামর্থ অনুযায়ী এই নগদ অর্থ বিতরণ করছেন।

(ঢাকাটাইমস/৭মে/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :