কবিতা

ফোটাতে চাই মনের মুকুল

ড. নেয়ামত উল্যা ভূঁইয়া
 | প্রকাশিত : ০৮ জুন ২০২১, ১৪:৪৪

যাচ্ছো কোথায়

একটু দাঁড়াও,

হাত দু’খানা

খানিক বাড়ও।

নাও এ দুটো

গোলাপকলি,

নাড়ির ধ্বনন

প্রেমাঞ্জলি।

ফুল না নিয়ে

কুঁড়ি নিলে,

মনের মাঝে

স্বস্তি মিলে।

তোমার মনের

রাগ অনুরাগ,

বুঝেই কলি

মেলবে পরাগ।

গোলাপ দিয়ে

মন ভুলিয়ে,

চাই না দিতে

ভাব গুলিয়ে।

আমার চাওয়া

মূল্য না পাক,

তোমার কোঠায়

বল তবু থাক!

যেমন খুশি

খেলতে পাবে,

নতুন যারা

হাত বাড়াবে-

তাদের তোমার

ইচ্ছে মতো

টানবে কাছে,

নয় হারাবে।

তোমায় যখন

প্রিতম বলি,

এক তরফা

জোড়া তালি।

আমার কথায়

কি আসে যায়?

কথার মানে

শূন্যে মিলায়।

তোমার ভাবনা

সবুজ পাতা,

আমার ভাবনা

শুকনো লতা।

তোমার চোখের

কোনে যদি

জ্বলতে দেখি

শিশির কণা,

আমি ভাবি

ধুইয়ে দেবে

আমার সকল

বিড়ম্বনা।

এক পলকের

কথামালা

তোমায় করে

শকুন্তলা;

দুস্মন্তের

মিললে মালা

দুর্বাসাতো

পাবেই হেলা।

হয়তো আমি

যাবো ভুলে,

তুমি তবু

রইবে আমার;

রাজ্য শাসন

তুচ্ছ করে

নামবো পথে

তোমায় পাবার।

তোমার আমার

প্রেমের প্রতীক

ভরত হবে

মিলন সেতু,

আমরা তখন

খুঁজবো না আর

যুক্তি কিংবা

শাপের হেতু।

তুমি চাইলে

অস্তাচলকে

পূর্বাচলে

দাঁড় করাবো,

আবার ওকে

অরুণ রাগে

তোমার যোগ্য

সাজ পরাবো।

জ্যোৎস্না পরীর

ডানায় ডানায়

রূপোর ঝিলিক

লেপ্টে দেবো,

রূপোর থালার

রূপের বাহার

তোমার জন্যে

হাতড়ে নেবো।

ওসব কেবল

আমার কথা

তোমার কথার

ফুটলে কলি,

আমি দেবো

আমার সকল

খোশ খেয়ালের

জলাঞ্জলি।

তুমি কি চাও!

সেই কথাতেই

আমার কথা

আটকে আছে,

তোমার কথার

খুললে পরাগ

আমার কথার

প্রাণটা বাঁচে।

থাকনা আমার

আবেগ রঙে

নানা রঙের

অবাধ্যতা,

তোমার সাড়া

এক ঝলকে

আনবে প্রেমের

স্বার্থকতা।

দুজন মিলে

এমন প্রেমের

গড়বো ভুবন

এ তল্লাটে,

তখন কেউ আর

বেচবে না প্রেম

রূপের হাটে

সদরঘাটে।

আমরা প্রেমের

প্রতীক হবো

প্রবাদ হবো

পরম্পরায়,

তোমার আমার

প্রেম না হলে

জ্বলবে ভুবন

চৈত্র খরায়।

--

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :