কোটা নিয়ে হাইকোর্টের রায়ে ৪ সপ্তাহের স্থিতাবস্থা, পরবর্তী শুনানি ৭ আগস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১০ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৬ | প্রকাশিত : ১০ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৬

সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের ওপর স্থিতাবস্থা জারি করেছেন আপিল বিভাগ। চার সপ্তাহ পর এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

এদিন একসঙ্গে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর করা আবেদনের ওপর শুনানি হয়। আজ সকাল ১০টায় দুটি আবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা থাকলেও পিছিয়ে সাড়ে ১১টায় ধার্য করা হয়। পরে শুনানি শেষে আপিল বিভাগ স্থিতাবস্তার আদেশ দেন।

এর আগে মঙ্গলবার আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম আপিল শুনানির জন্য বুধবার দিন ধার্য করেন। শুধু এই মামলার শুনানির দিন ধার্যের জন্য ওইদিন বেলা সাড়ে ১১টায় চেম্বার বিচারপতির আদালত বসেছিলেন।

কোটা নিয়ে রিটকারী পক্ষ নতুন আইনজীবী নিয়োগ করে বিশেষ চেম্বার আদালতে শুনানির আবেদন করে। পরে চেম্বার বিচারপতি আশফাকুল ইসলাম ‍বুধবার শুনানির দিন ধার্য করেন। যেহেতু এখনো পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ পায়নি সে হিসেবে বিশেষভাবে চেম্বার আদালত এ আদেশ দেন।

এদিকে সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার আপিল বিভাগে আবেদন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী।

আবেদন করার জন্য হলফনামার অনুমতি চেয়ে মঙ্গলবার আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করেন তারা। আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম হলফনামা করার অনুমতি দেন।

আবেদনকারী দুই শিক্ষার্থী হলেন— ঢাবির নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আল সাদী ভূঁইয়া ও উর্দু বিভাগের শিক্ষার্থী আহনাফ সাঈদ খান। তারা কোটাপদ্ধতির সংস্কারপন্থী হিসেবে পরিচিত।

আদালতে দুই শিক্ষার্থীর পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এম হারুনুর রশীদ খান।

অনুমতির পর হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদনটি দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী এম হারুনুর রশীদ খান।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সাল পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা প্রচলিত ছিল। এর মধ্যে ৩০ শতাংশই ছিল মুক্তিযোদ্ধা কোটা। বাকি ১০ শতাংশ নারী কোটা, ১০ শতাংশ জেলা, ৫ শতাংশ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এবং এক শতাংশ কোটা ছিল প্রতিবন্ধীদের।

ওই বছরই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। সেসময় শিক্ষার্থীদের দাবি ছিল কোটা ৫৬ শতাংশ না হয়ে ১০ শতাংশ করা হোক। তাদের দাবির মুখে ওই বছরই সরকারি চাকরিতে পুরো কোটা পদ্ধতি বাতিল করে পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

তবে ২০২১ সালে কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা ফিরে পাওয়ার জন্য উচ্চ আদালতে রিট করেন। গত ৫ জুন ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের সরকারি সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয় হাইকোর্ট। হাইকোর্টের ওই রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

গত ৪ জুলাই কোটার পক্ষের এক আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে শুনানি করেন আদালত। রিট আবেদনকারী পক্ষের সময়ের আরজির পরিপ্রেক্ষিতে সেদিন আপিল বিভাগ নট টুডে (৪ জুলাই নয়) বলে আদেশ দেন।

পাশাপাশি রাষ্ট্রপক্ষকে নিয়মিত লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করতে বলা হয়। এ অবস্থায় হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে ঢাবির ওই দুই শিক্ষার্থী আবেদন করলেন।

এদিকে হাইকোর্টের ওই রায়ের পর গত ৬ জুন থেকে তা বাতিলের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। তবে কোরবানির ঈদের কারণে ২৯ জুন পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত রাখেন তারা। এরপর ৩০ জুন থেকে ফের আন্দোলন শুরু করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আর ১ জুলাই থেকে কোটাবিরোধী আন্দোলন দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে।

(ঢাকাটাইমস/১০জুলাই/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আদালত এর সর্বশেষ

জেনারেল আজিজের দুর্নীতি অনুসন্ধান চেয়ে হাইকোর্টে রিট

জামিন পেলেন মিল্টন সমাদ্দার

কোটা পদ্ধতি: হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল আজ

দুদকের মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে ড. ইউনূস

কোটা পদ্ধতি বাতিলের পরিপত্র অবৈধ: হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

শুক্রবার ছাড়া রাস্তায় কর্মসূচি-অবরোধ বন্ধে আইনি নোটিশ

ফাঁস প্রশ্নে বিসিএস পাস করে নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের তালিকা প্রকাশে আইনি নোটিশ

ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলের আদেশ বহাল

সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মুজিব সাল্ফ স্ট্যান্ডিং কমিটির অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক

কোটা ব্যবস্থা রেখেই পরিবর্তন-পরিবর্ধন করতে পারবে সরকার: হাইকোর্টের রায় প্রকাশ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :