ইউএসটিসি কর্মচারীদের কর্মসূচি ৩১ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত

চট্টগ্রাম ব্যুরো
 | প্রকাশিত : ১৭ জুলাই ২০১৯, ২১:০৮
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দীনের হস্তক্ষেপে ইউএসটিসির কর্মচারীদের সার্ভিস রুল বাস্তবায়ন ও  কর্মচারীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার নিয়ে ইউএসটিসির কর্মচারী ইউনিয়নের চলমান কর্মসূচি ৩১ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত করা হয়।

বুধবার সকালে সিটি মেয়রের কার্যালয়ে ইউএসটিসির কর্তৃপক্ষ এবং কর্মচারী ইউনিয়নের মধ্যকার এক সমঝোতা  বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

বৈঠকে সিটি মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ইউএসটিসির বোর্ড ট্রাস্টির চেয়ারম্যান আহমদ ইফতেখারুল ইসলাম, ডা. শেখ মাসিত নুর ইসলাম (সাবা), বাংলাদেশে শ্রমিকলীগের যুগ্ম সম্পাদক শফর আলী, ইউএসটিসি চেয়ারম্যানের পক্ষে ইঞ্জিনিয়ার আশিক ইমরান, ইউএসটিসি কর্মচারী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মানিক মিয়া, আরিফ আহমেদ চৌধুরী, সোলেমান, আবদুল আজিজুর রহমান, সোহেল, হেমায়েত  উদ্দিন, জমির আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ইউএসটিসি কর্মচারী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ মানিক মিয়া বলেন, ‘ইউএসটিসিতে কর্মচারীরা দীঘদিন যাবত শ্রমের নায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে। এই অধিকার আদায়ের জন্য বিশেষ করে সার্ভিস রুল পাওয়ার জন্য ইউএসটিসির কর্তৃপক্ষের সাথে অনেকবার বৈঠক ও দেন-দরবার হয়।

এই প্রেক্ষিতে চলতি বছর ৬ জুন তারিখে ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ একটি খসড়া সার্ভিস রুল প্রদান করে। যা বাংলাদেশ শ্রম আইন অনুয়ায়ী নয়। তাই চাকুরি যোগদান তারিখ থেকে অর্জিত ছুটি, গ্র্যাজুয়াটি এবং সরকার ঘোষিত পে-স্কেলসহ সার্ভিস রুলে অন্তর্ভুক্ত করে তা শ্রম আইন অনুযায়ী সার্ভিস রুল বাস্তবায়নের দাবি জানান ইউএসটিসির কর্মচারী ইউনিয়ন। এই প্রসঙ্গে ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ ২০১৪ সালে ইউএসটিসির সমস্যা সমাধানকল্পে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক এবং নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, বর্তমান চসিক মেয়রের মধ্যে ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক হয়।

বৈঠকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ মোতাবেক শ্রম আইনের আলোকে জুন- ২০১৯ বিধি তৈরি করা হয়। কিন্ত প্রস্তুতকৃত এ বিধি কার্যকর না করায় ইউএসটিসি কর্মচারীদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। ফলে আজ ইউএসটিসি কর্মচারী ইউনিয়ন মানববন্ধন পালন করে। ইউএসটিসির এ অচলাবস্থার সংবাদ পেয়ে তা নিরসনের জন্য উদ্যোগ নেন চট্টগ্রামের মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন।

সিটি মেয়রের উপস্থিতিতে দীর্ঘ ১ ঘন্টার বেশি সময় ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে আলাপ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় এবং পরে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ইউনিয়নের সকল কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

বৈঠকে ৩১ আগস্ট মধ্যে চাকরি বিধিমালা প্রকাশ ও কার্যকর করা হবে। এই বিধিমালা ইউএসটিসি ভিসির নেতৃত্বে প্রণীত হবে। এছাড়া ইউনিয়নের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

বৈঠকে সিটি মেয়র বলেন, ‘মালিক-কর্মচারী সম্পর্ক হতে হবে হৃদ্যতাপূর্ণ। একে অপরের পরিপূরক হয়ে কাজ করলে কেবল দেশ নয়, প্রতিষ্ঠানও উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাবে। প্রতিষ্ঠানকে টিকে রাখার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট শ্রমিক ও কর্মচারীর। এতে শ্রমিক, কর্মচারীরা তাদের নায্য দাবি পেতে পারে। তাই শ্রমিক, কর্মচারী ও মালিক পক্ষের সম্পর্ক হতে হবে বন্ধুত্বসুলভ। একই সাথে মালিক পক্ষের উচিত শ্রমিক কর্মচারীর সামাজিক ও অথনৈতিক বিবেচ্য বিষয়গুলো খেয়াল রাখা প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন।’

(ঢাকাটাইমস/১৭জুলাই/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বন্দর নগরী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :