নারায়ণগঞ্জে একদিনে চার মরদেহ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৭
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জে পৃথক ঘটনায় একই দিনে চারজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে জেলার ফতুল্লা, আড়াইহাজার, বন্দর ও সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে তিনজনকে হত্যা করা হয়েছে। উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহগুলো নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নিহতদের মধ্যে তিনজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- আড়াইহাজার উপজেলার মারওয়ার্দী গ্রামের মৃত আহেদ আলীর ছেলে সুরুজ মিয়া (৪০), বন্দর উপজেলার কাইতাখালি এলাকার মৃত সফিউদ্দুন টুক্কি শিকদারের ছেলে মিশন শিকদার (২৮), ফতুল্লার লালখাঁ এলাকার মৃত আব্দুল হামিদের মেয়ে শেফালী বেগম (৪২)। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার সকালে আড়াইহাজারে জমি-সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মারওয়ার্দী গ্রামে সুরুজ মিয়াকে প্রতিপক্ষের লোকজন পিটিয়ে আহত করে। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, জমিসংক্রান্ত জেরে প্রতিপক্ষ আবুল হোসেন গং সুরুজ মিয়াকে পিটিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এ সময় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে সোমবার দিনগত রাত ২ টার দিকে বন্দর উপজেলায় কাইতাখালি এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ও টাকা পয়সার লেনদেন সংক্রান্ত বিরোধে মিশন নামে এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় মিঠুসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজহারুল ইসলাম জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ও টাকা পয়সার লেনদেন নিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে, তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বাকিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অপরদিকে ফতুল্লার লালখাঁ এলাকায় শেফালী বেগম নামে এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাসানুজ্জামান জানান, পরিবারের অভিযোগ তার মৃগী রোগ ছিল। যার কারণে পড়ে গিয়ে মারা গেছেন তিনি। তবে ঘটনাটি রহস্যজনক হওয়ায় মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

এছাড়া আজ সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকার মতিন সড়কে বসুন্ধরা কয়েল কারখানার পাশ থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের (২৫) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পুলিশের ধারণা অন্য কোথাও তাকে মেরে মরদেহ ওই স্থানে ফেলে রেখে গেছে হত্যাকারীরা।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) এইচ এম জসিম উদ্দিন জানান, মঙ্গলবার সকালে স্থানীয়রা মিজমিজি মতিন সড়ক এলাকার কয়েল কারখানার পাশের রাস্তায় মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ সকাল সাড়ে ৮টায় ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। তার পরিচয় এখনও শনাক্ত করা যায়নি।

তিনি বলেন, মরদেহের ডান হাতের বৃদ্ধা আঙুলের নখ উপড়ানো এবং বাম হাতের কব্জির ওপরে এবং নিচে দুটি কামড়ের দাগ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে অন্য কোথায় মেরে মরদেহ এখানে ফেলে গেছে দুর্বৃত্তরা। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

(ঢাকাটাইমস/২৩জুলাই/ডিএম/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :