ঢাকার নির্বাচন পেছানোর দাবিতে অনশন, অসুস্থ ৯

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ২১:০৩ | প্রকাশিত : ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ২০:৫৪

ঢাকার দুই সিটি করেশেনের নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে আমরণ অনশনে বসা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নয় শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

এদের মধ্যে দুজন শিক্ষার্থী শুক্রবার রাতে ঢাকা মেডিকেল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আবারো অনশনে যোগ দেন। আর বাকিদেরকে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশেই স্যালাইন নিতে দেখা যায়।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে ‘সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন না’ এই দাবিতে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করেন।

অনশনে অসুস্থ হওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- জগন্নাথ হল সংসদের সহ সভাপতি উৎপল বিশ্বাস, জগন্নাথ হল সংসদের সাধারণ সম্পাদক কাজল দাস, থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের অপূর্ব চক্রবর্তী, সয়েল, ওয়াটার এন্ড এনভায়রোনম্যান্ট বিভাগের অর্ক সাহা, জয়ন্ত বণিক, ভবতোষ চন্দ্র রায়, ট্যুরিজম এ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের সবুজ কুমার, পালি এন্ড বুদ্ধিস্ট স্টাডিজ বিভাগের সুকেশ দেবনাথ, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃত বিভাগের রবিউল আওয়াল রবি।

এদিকে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে আজ সন্ধ্যা থেকে অনশনে বসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ এর সদস্য তানভীর হাসান সৈকত। এর আগে বিকালে শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করতে রাজু ভাস্কর্যে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড মো আখতারুজ্জামান। এ সময় উপাচার্যেও সঙ্গে ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীসহ সহ সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন উপস্থিত ছিলেন। উপাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, ৩০ তারিখ যে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হলো এটি কোনো ব্যক্তি, গোষ্ঠী বা জাতি থেকে আসেনি। এটি বানানো। তাই আমি মনে করি যদি আইন-আদালতের কোন ঝামেলা না থাকে তাহলে অসাম্প্রদায়কিক চেতনার দিকটি বিবেচনা করে কালবিলম্ব না করে নির্বাচন কমিশনের এই তারিখটি পরিবর্তন করা উচিৎ।

শিক্ষার্থীদের সাথে অনশনে অংশ নিয়ে ডাকসু সদস্য তানভীর বলেন, বাংলাদেশ যেহেতু সাংবিধানিক ভাবে ধর্মীয় সম্প্রীতির দেশ আমরা মনে করি আমাদের সংবিধান সকল ধর্মকে সমানাধিকার দিয়েছে ।সরস্বতিকে বিদ্যার দেবী বলা হয়। প্রতিটি শিক্ষাঙ্গনেই এই পূজাটি পালন করা হয়। এই দিন আমরা হিন্দু মুসলিম সবাই উৎসব মূখর পরিবেশের মাধ্যমে  কাটাই। এই পূজার দিনে নির্বাচনের তারিখ দেওয়ার মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান হওয়ার পরও সংবিধান লঙ্গন করেছে । একই সাথে নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত বঙ্গবন্ধু যে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছেন সেটির উপরও আঘাত বলে আমি মনে করি ।

শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি সংহতি জানিয়ে বিকালে উপস্থিত হন ডাকসুর আরেক সদস্য রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য । তিনি বলেন , একই দিনে ভোট এবং পূজা হতে পারে না।এ টি সাংঘর্ষিক একটি বিষয়।এটি বাংলাদেশের জন্য একটি অশনি সংকেত যে,  ধর্মীয় উৎসবের দিনেও এদেশে ভোট হয়। শিক্ষার্থীদের এই যে গণ জোয়ার এটি কিন্তু আদালতের রায় দিয়ে ঠেকানো যাবে না ।

এরআগে গত মঙ্গলবার নির্বাচন পেছনোর দাবিতে হাইকোর্টে করা রিট খারিজ করে দেন আদালত। এর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এদিন বিকালে শাহবাগ অবরোধ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে  নির্বাচন কমিশনকে  ১৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে মঙ্গলবারের অবরোধ শেষ করেন শিক্ষার্থীরা। এর ভিতর নির্বাচনের তারিখ পেছানো না হলে পরদিন বুধবার ইসি ঘেরাও করার হুশিয়ারী দেন শিক্ষার্থীরা। এদিকে বুধবার ইসি ঘেরাও এর উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীরা পদযাত্রা শুরু করলে শাহবাগে বাধার সম্মুখীন হয়ে সেখানেই অবস্থান নেয় তারা।  সেখান থেকেই  শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের অংশ হিসেবে নির্বাচনের তারিখ না পেছানো পর্যন্ত  আমরণ অনশন কর্মসূািচ ঘোষণা করেন শিক্ষার্থীরা ।

ঢাকাটাইমস/১৭জানুয়ারি/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :