করোনার ভ্যাকসিন তৈরি করবে জনসন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ এপ্রিল ২০২০, ১০:১৩

বিশ্বব্যাপী মহামারি রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরির ঘোষণা দিয়েছে শিশুদের উপযোগী জিনিসপত্র প্রস্তুতকারক সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসন। সম্প্রতি এই ঘোষণার পরেই জনসন অ্যান্ড জনসনের শেয়ারের দাম প্রায় ৮ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে।

সোমবার ওই সংস্থার তরফে জানানো হয়, জরুরি ভিত্তিতে কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন বানানো শুরু করবে তারা। আগামী বছরের গোড়ার মধ্যে ওই ওষুধ হাতে এসে যাওয়ার কথা। আগামী সেপ্টেম্বর থেকেই মানুষের ওপর ওই ভ্যাকসিন পরীক্ষা করা হবে। যদিও জনসন আদতে ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা নয়। তা সত্ত্বেও কোভিড-১৯ এর টিকা তৈরির ক্ষেত্রে প্রথম এগিয়ে আসা সংস্থাগুলোর মধ্যে এটি একটি।

জনসন অ্যান্ড জনসনের সিইও অ্যালেক্স গোরস্কি জানান, এই মুহূর্তে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য সঙ্কট চলছে। এই পরিস্থিতিতে ভ্যাকসিন তৈরিতে আমাদের দিক থেকে যতটা সম্ভব তা করতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এক বিবৃতিতে সংস্থাটি আরো জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে ভ্যাকসিন তৈরির পরিকাঠামো ও ক্ষমতাও বাড়াচ্ছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

করোনার হানা শুরু হওয়ার পর থেকেই বিশ্বের অনেক কোম্পানি ও বিভিন্ন দেশ এর ভ্যাকসিন তৈরির গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র করোনার ভ্যাকসিনের প্রথম ধাপে মানুষের ওপর পরীক্ষা করেছে। চীনও প্রাণীর ওপর পরীক্ষা চালিয়েছে। এরই মধ্যে চীনের তৈরি ভ্যাকসিন দেশের বাইরেও পরীক্ষার কথা ভাবছে বেইজিং। চীনের এক গবেষক সম্প্রতি জানান, ভাইরাসের কেন্দ্র উহানে পরীক্ষা সফল হলে অন্যান্য দেশেও তা পরীক্ষা করা যেতে পারে।

চাইনিজ অ্যাকাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সদস্য চেন ওয়েই জানান, সরকারের অনুমতি অনুসারে গত ১৬ মার্চই উহানে ভ্যাকসিনের প্রথম ধাপের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এপ্রিলে তার ফলাফল হাতে আসার কথা। চীনে থাকা বিদেশিদের ওপরেও ওই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে বলে জানান চেন।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক পরীক্ষার পরে ভ্যাকসিন যদি সুরক্ষিত ও সফল প্রমাণিত হয়, তবে তা পরীক্ষার পরবর্তী ধাপগুলিতে নিয়ে যাওয়া হবে। বিশ্ব জুড়ে যা পরিস্থিতি, তাতে এটি কাজ করলে কোভিড-১৯ অতিমারি অনেকটাই রুখে দেওয়া যাবে।

ঢাকা টাইমস/০১এপ্রিল/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত