শীতে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর কৌশল

স্বাস্থ্য ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১১:৩৭ | প্রকাশিত : ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৭

শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী না হলে অল্প অসুস্থতাতেও মানুষ খুব সহজে দুর্বল হয়ে পড়ে এবং রোগের আক্রমণও জোরালো হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে কিছু সাধারণ অথচ অসাধারণ পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার প্রাতরাশের তালিকায় রাখলে হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। আর হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার মানে আপনার পাচনতন্ত্রের উন্নতি সেই সাথে শরীরের সামগ্রিক ইম্যুনিটি বৃদ্ধি পাওয়া। এই করোনা আবহে বেঁচে থাকার একটাই উপায় নিজেকে করে তুলতে হবে ‘ইম্যুনিটি’ পাওয়ারফুল। সকালের খাবারে ঠিক কোন কোন খাদ্য ও পুষ্টিগুণসম্পন্ন জিনিস ব্যবহার করবেন কোনটি করবেন না।

পাকা পেঁপে বা কাঁচা পেপে: খাদ্য বিশেষজ্ঞদের মতে দিনের প্রথম আহারটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেক্ষেত্রে সকালের খাবারে পেঁপে দিন শুরুর জন্য উপযুক্ত। সকালে প্রাতরাশের তালিকায় পেঁপে রাখুন, এই পেঁপে সারাদিনের হজম শক্তিকে বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে। পেঁপেতে প্যাপাইন নামক একটি উৎসেচক থাকে, যা প্রোটিন হজমে সহায়ক। এর পাশাপাশি আপনার হজম শক্তিকে বাড়াতে সাহায্য করে। পাকা পেঁপেতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন ও মিনারেলসও।

আপেল: ‘ওয়ান অ্যাপল আ ডে, কীপ্স ডক্টর অ্যাওয়ে’ মানে ‘দিনে একটা আপেল খেলে, শরীর থাকবে আপনার দখলে’ এই ফর্মুলা তো আমরা সকলেই জানি। আর এর পেছনে যথেষ্ট কারণও আছে। আপেলে ভিটামিন এ ও সি তে সমৃদ্ধ আপেলে পটাশিয়াম ও একাধিক মিনারেলসও থাকে। ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ার কারণে এটি কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে ও হজম ক্ষমতাকে আরও শক্তিশালী করে।

পাকা কলা: পাকা কলার গুণাগুণ সম্পর্কে অবহিত নয় এমন লোক কমই রয়েছে। কলা প্রচুর ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ায় এটি কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সহায়ক। পাশাপাশি এটি অন্ত্রের কার্যক্ষমতাও বৃদ্ধি করে।

মধু লেবু: ঈষদুষ্ণ পানিতে মধু ও লেবু মিশিয়ে পান করলে হজম শক্তি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুই-ই বৃদ্ধি পায়। সকালে খালি পেটে এটি পান করলে মেটাবলিজম বাড়ে ও ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এছাড়া রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এক চা চামচ মধু খেয়ে নিন। পুরো সঞ্জীবনী সুধা’র মত কাজ করবে।

শসা: আমরা সকলেই জানি ইরেপসিন নামক এক উৎসেচকের উপস্থিতির কারণে শসা হজমের শক্তি বৃদ্ধিতে উপযোগী। পেপটিক আলসার, অম্বল, গ্যাসের সমস্যা থেকে স্বস্তি দিতে পারে শসা। তাই প্রাতরাশে একটি শসা খেলে তা শরীরের পক্ষে উপকারী প্রমাণিত হতে পারে। তাই প্রাতরাশে অবশ্যই রাখুন শসা।

খালি পেটে যেসব খাবার খাবেন না

টক ফল: কখনো কখনো খালি পেটে টক ফল খাবেন না। এর ফলে শরীরে প্রচুর অ্যাসিড তৈরি হয়। খালি পেটে এগুলো খেলে পেটে অতিরিক্ত ওজন জমতে শুরু করতে পারে। পরিবর্তে, দিনটি কিসমিস বা ভেজানো বাদাম খাওয়ার মাধ্যমে শুরু করা উচিত।

সফট ড্রিঙ্ক: সোডা বা কোনো সফট ড্রিঙ্কস খালি পেটে পান করা উচিত নয়। যদিও এই পানীয়গুলো কখনই স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো না, তবে খালি পেটে এগুলো পান করলে আরও ক্ষতি হয়। খালি পেটে এগুলো পান করার ফলে গ্যাস এবং বমি বমি ভাব দেখা দেয়। পাশাপাশি স্থূলতা বাড়ে। পরিবর্তে খালি পেটে লেবু পান করুন এটি ওজন হ্রাসেও সহায়ক।

মশলাদার খাবার: সকাল থেকে খালি পেট থাকার পরে, প্রাতরাশের পর মশলাদার খাবার খেলে আপনার পেট জ্বালা হতে পারে। মশলাদার খাবার খেয়ে পেটে অম্বলও হতে পারে। প্রাতরাশ সবসময় হালকা এবং সহজ হওয়া উচিত।

কোল্ড ড্রিঙ্কস: কোনোভাবেই দিন কোল্ড ড্রিঙ্ক দিয়ে শুরু করা উচিত নয়। কোল্ড কফি বা আইস টি পান করা আপনার হজম ক্ষমতাকে কমিয়ে দিতে পারে।

পরিবর্তে হালকা গরম পানি, লেবু বা আদা চা নিন। এই তিনটি জিনিস ওজন কমানোর পাশাপাশি হজম শক্তি বাড়িয়ে তোলে।

(ঢাকাটাইমস/২৯ নভেম্বর/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :