রান্নাঘরের কয়েকটি মশলাই পারে শরীরের বাড়তি ওজন ঝরাতে!

ফিচার ও স্বাস্থ্য ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫৪

ওজন নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকেন অনেকেই। কারণ, শরীরের বাড়তি ওজন ডেকে আনে নানা রোগ। যার মধ্যে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ অন্যতম। তাই ওজন ঝরানোর জন্য অনেকে অনেক পরিশ্রম করেন, কিন্তু ফল পান না।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওজন কমানোর জন্য আর বিরাট পরিশ্রম করতে হবে না। রান্নায় নিয়মিত আটটি মশলা ব্যবহার করলেই তরতরিয়ে কমবে ওজন। চলুন তবে জেনে আসি সেই মশলাগুলো সম্পর্কে-

আদা ও হলুদ

আদা কেবল সর্দি-কাশিতেই উপকারী নয়, ওজন কমানোর ক্ষেত্রেও দারুণ কাজ করে। শরীরের চর্বি দূর করে দেয় আদা। পাশাপাশি হলুদের বিশেষ গুণ হলো শরীরের ফ্যাট টিস্যু নিয়ন্ত্রণ করা। ফলে দ্রুত ওজন কমে যায়। এই দুই ভেষজ একসঙ্গে খেলে ওজন কমতে পারে।

মৌরি

খিদে কমিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে মৌরি। মৌরি পেট এবং হজমব্যবস্থাকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা ওজন কমানোর জন্য সব সময় মৌরি খাওয়ার পরামর্শ দেন।

এলাচ

টর্পিন, টপিনিনোল, সিনিয়োল, অ্যাসিটেট, টপিনিলসহ আরও কিছু উপাদান রয়েছে এলাচে। এগুলো খেলে শরীরে বাড়তি মেদ তৈরি হয় না। চিকিৎসকরা তাই দ্রুত ওজন কমাতে এলাচ খাওয়ার পরামর্শ দেন।

মেথি

দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে মেথি। চিকিৎসকরা নানা কারণে মেথি খাওয়ার পরামর্শ দেন। তার মধ্যে একটি অবশ্যই ওজন কমানো। পুষ্টিবিদরাও মনে করেন মেথি খেলে দ্রুত ওজন কমে যায়। এছাড়া মেথির আরও হাজারো গুণ আছে।

জিরা

বদ হজম ও খাবারে অরুচি কমাতে সাহায্য করে জিরা। পাইলসের সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা মিছরির সঙ্গে জিরা মিশিয়ে খেলে উপকার পান। নিয়মিত জিরা খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

দারুচিনি

ওজন কমাতে বিশেষভাবে সাহায্য করে দারুচিনি। নিয়মিত দারুচিনি খেলে খিদে কিছুটা কমে যায়। ফলে বাড়তি মেদ কমে। যারা দ্রুত ওজন কমাতে চান, তারা প্রতিদিন দারুচিনি খেতে পারেন। তাতে অনেক ধরনের সুবিধা পাবেন।

ইসবগুল

ইসবগুল পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। হজম ক্ষমতা বাড়ায়। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ইসবগুল খেলে ওজন কমবে। অনেকে পরামর্শ দেন, দিনে দুইবার খাবার খাওয়ার ১০ মিনিট আগে তিন চামচ ইসবগুল খেতে। তাতে নাকি বেশি উপকার পাওয়া যায়।

কাঁচা মরিচ

কাঁচা মরিচে অ্যাকজেলিক অ্যাসিড, কিউনিক অ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড, এস্কার্বিক অ্যাসিড, সাক্সিনিক অ্যাসিড, সিকিমিক অ্যাসিড, ফোলিক অ্যাসিড, সাইট্রিক অ্যাসিড, ম্যালিক অ্যাসিড, মেলানিক অ্যাসিড, আলফা এমিরন, ক্যানসিডিনা, ক্যারোটিনস, ক্রিপ্টোক্যানসিন, ফ্ল্যাভনয়েডস-সহ নানা উপকারী উপাদান রয়েছে।

এসব উপাদান শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। গবেষণায় দেখা গেছে, মেটাবলিজম বাড়িয়ে ক্যালোরি বার্ন করতে সহায়তা করে কাঁচা মরিচ। তাই প্রতিদিন খাবার পাতে এক-দুটি কাঁচা মরিচ রাখতেই পারেন।

(ঢাকাটাইমস/১৯এপ্রিল/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :