লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণা, আটক ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ১৬:২৮ | প্রকাশিত : ০৪ আগস্ট ২০২১, ১৪:৪৯

অনলাইন প্লাটফর্মে প্রতারণার মাধ্যমে একটি চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে অনলাইন প্লাটফর্মসহ কেবল টিভির লোকাল চ্যানেলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণা করত এই চক্রটি। এ চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

বুধবার দুপুরে সিআইডির সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তাধর।

এর আগে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তাধরের নির্দেশনায় ওই প্রতারক চক্রটির মূল উৎপাটনের লক্ষ্যে সারা দেশে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ভোলা থেকে সিআইডির একটি দল আল আমিন নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজধানীর ডেমরা এলাকা থেকে তার অপর দুই সহযোগী মো. রাসেল এবং মো. সোহাগকে আটক করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন, একটি পাসপোর্ট (নম্বর-ইবি০৮৮৩২০৮), রুপালী ব্যাংকের একটা চেকবই, ইস্টার্ন ব্যাংকের পাঁচটি এটিএম কার্ড, মিডল্যান্ড ব্যাংক লিমিটেডের একটি ভিসা কার্ড, নগদ ৩১ হাজার টাকা ও তিনটি মোবাইল সিম উদ্ধার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তাধর বলেন, জিনের বাদশা পরিচয়দানকারী মো. আল আমিন জয়যাত্রা টিভিসহ বিভিন্ন অনলাইন ও কেবল নেটওয়ার্কের লোকাল চ্যানেলে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জটিল ও কঠিন রোগে আক্রান্ত অসুস্থ মানুষকে সুস্থ করা, বিদেশে যাওয়ার সুব্যবস্থা করাসহ নানা সমস্যা সমাধানের জন্য বিজ্ঞাপন দিতো। এরপর প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে হাতিয়ে নিতো মোটা অঙ্কের টাকা।

মুক্তাধর জানান, তাদের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের খুলশি থানায় মামলা রয়েছে। ওই মামলাটি তদন্ত করতে গিয়ে জানতে পারি এক ভুক্তভোগী নারীর স্বামী বিদেশ থাকেন। তার একটা দুরারোগ্য ব্যাধি রয়েছে। টেলিভিশনের বিজ্ঞাপন দেখে ফোন করলে ওই ভুক্তভোগী নারীকে বলা হয়, তার সমস্যার সমাধান করা হবে। তিনি জান্নাতি নারী। তার বাসার নিচে আড়াই কেজি স্বর্ণ লুকায়িত আছে সেটা পাহারা দিচ্ছে একটা অজগর সাপ। ওই স্বর্ণ আনতে পারলে আমাদের একটা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান করে দিতে হবে। পরে তাকে বলা হয়, ওই সাপকে খাওয়ানোর জন্য আড়াই মণ দুধ লাগবে। পরে ১০ কেজি আতর লাগবে। এভাবে ওই নারীর কাছ থেকে চক্রটি ২২ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার খায়রুল আমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজাদ রহমান ও সহকারী পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/৪আগস্ট/এএ/কেআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :