সাশ্রয়ী মূল্যে স্টাইলিশ ফোন ইনফিনিক্স নোট-৩০ প্রো এখন বাজারে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ জুলাই ২০২৩, ২২:৫৬

হংকং-ভিত্তিক স্মার্টফোন কোম্পানি ইনফিনিক্স সম্প্রতি বাংলাদেশের বাজারে এনেছে নোট-৩০ সিরিজ। নোট-৩০ সিরিজের প্রিমিয়াম ফোন, নোট-৩০ প্রো বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। সাশ্রয়ী এবং মাঝারি মূল্যের এই ফোনটিতে আছে শক্তিশালী চার্জিং, ক্যামেরা সিস্টেম ও ওয়্যারলেস ফাস্ট চার্জিংসহ আরও অনেক কিছু। চলুন জেনে নেওয়া যাক নোট-৩০ প্রো এর প্রধান স্পেসিফিকেশন এবং এর সুবিধা ও অসুবিধাগুলো।

ইনফিনিক্স নোট-৩০ প্রো-র প্রধান ফিচারগুলো:

ডিজাইন:

নোট-৩০ প্রো-তে আছে সূক্ষ্ণ বেজেলযুক্ত ৬.৬৭ ইঞ্চি অ্যামোলেড ডিসপ্লে। দৃষ্টিনন্দন, উজ্জ্বল টেক্সচারের সাথে এর ব্যাক প্যানেলে আরো আছে ইনফিনিক্সের ছোট লোগো আর সুবিন্যস্ত ট্রিপল-লেন্স ক্যামেরা সেটআপ।

ডিসপ্লে:

ডিভাইসটির ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট রয়েছে। এর ১০৮০x২৪০০ পিক্সেলের অ্যামোলেড ডিসপ্লে’র সঙ্গে আছে ৯০০ নিট-এর সর্বোচ্চ ব্রাইটনেস এবং ৩৬০ হার্জ টাচ স্যাম্পলিং রেট। এটি গেমিং এবং ভিডিও প্লেব্যাকের সময় প্রাণবন্ত রং ও দারুণ ডিটেইলের নিশ্চয়তা দেয়।

পারফরম্যান্স:

৬ ন্যানোমিটার মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৯ প্রসেসর রয়েছে ফোনটিতে। ভেপার-চেম্বার লিকুইড কুলিং প্রযুক্তি থাকার ফলে গেমিংয়ের মতো কাজের সময়ও ফোন থাকে ঠান্ডা। তাছাড়া, ইনফিনিক্সের আল্ট্রা পাওয়ার সিগন্যাল (ইউপিএস) প্রযুক্তি একটি স্থিতিশীল ও নিরবচ্ছিন্ন কানেকশন নিশ্চিত করে। বিশেষত দুর্বল সিগন্যালসম্পন্ন এলাকায় এটি বেশি কার্যকর।

ব্যাটারি ও চার্জার:

ফোনটিতে ব্যাটারি রয়েছে ৫০০ এমএএইচের। ডিভাইসটি ৬৮ ওয়াট অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ সাপোর্ট করে, যার ফলে মাত্র ৩০ মিনিটেই ফোনটিতে ১% থেকে ৮০% চার্জ দেওয়া যায়। বাড়তি সুবিধার জন্য এতে আরও আছে ১৫ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং। বাইপাস চার্জিং ফিচারটি ভারী ব্যবহারের সময়ও নিরাপদ চার্জিং নিশ্চিত করে। অ্যাক্সেসরিজ এবং অন্যান্য ওয়্যারড ও ওয়্যারলেস ডিভাইসে চার্জ দেওয়ার জন্য আছে এই ফোনের রিভার্স চার্জিং অপশন।

ক্যামেরা:

নোট-৩০ প্রো’র ক্যামেরা সেটআপে আছে ২ মেগাপিক্সেল মাইক্রো ক্যামেরা এবং একটি ২ মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর। ফোনটির ৩২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে ভালো মানের সেলফি তোলা যায়।

সফটওয়্যার:

এক্সওএস ১৩ দ্বারা চালিত এবং অ্যান্ড্রয়েড ১৩ -এর ওপর ভিত্তি করে গঠিত সফটওয়্যারটিতে আছে বিভিন্ন ধরনের কাস্টমাইজেশনের সুযোগ। এতে ব্যবহারকারীরা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী ফোনটিকে ব্যবহার করতে পারেন। এর লঞ্চার ও দারুণ পারফরম্যান্স গ্রাহকদের সামগ্রিক অভিজ্ঞতাকে উন্নত করে তোলে।

ইনফিনিক্স নোট-৩০ প্রো-র সুবিধা ও অসুবিধা:

ইনফিনিক্স নোট-৩০ প্রো-র বেশ কিছু সুবিধা আছে। যেমন: উজ্জ্বল টেক্সচারসম্পন্ন আকর্ষণীয় ডিজাইন, ভেপার-চেম্বার লিকুউড কুলিংসম্পন্ন শক্তিশালী মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৯ প্রসেসর এবং আকর্ষণীয় ১২০ হার্জ অ্যামোলেড ডিসপ্লে। এতে আরও আছে দ্রুত ও ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্টের সাথে দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি, ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সরসম্পন্ন বহুমুখী ক্যামেরা সেটআপ এবং অ্যান্ড্রয়েড ১৩-এর ওপর ভিত্তি করে পরিচালিত কাস্টমাইজেবল সফটওয়্যার।

তবে এর কিছু অসুবিধাও আছে। যেমন: গড়পড়তা ফোনের চেয়ে এই ফোন কিছুটা ভারী, প্রি-ইনস্টলড অ্যাপগুলো থেকে আসা নোটিফিকেশন বেশ ঝামেলাপূর্ণ, বিশেষত অল্প আলোয় এর ক্যামেরা পারফরম্যান্সের উন্নতি প্রয়োজন, এতে আল্ট্রা-ওয়াইড ফিচার যুক্ত করা দরকার এবং এর স্পিকারের মান আরও উন্নত করার সুযোগ আছে।

মূল্য:

বাংলাদেশে ইনফিনিক্স নোট-৩০ প্রো এর দাম ২৭,৯৯৯ টাকা। পাশাপাশি ক্রেতারা ২,০০০ টাকা দামের একটি ওয়্যারলেস চার্জার পাবেন বিনামূল্যে।

নোট-৩০ সিরিজের অন্তর্ভুক্ত নোট-৩০ প্রো এবং নোট-৩০ মডেলগুলো অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ প্রযুক্তিসম্পন্ন। ৮ জিবি+১২৮ জিবি এবং ৮ জিবি+২৫৬ জিবি’র দু’টি ভার্সনে নোট-৩০ পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে ১৮,৯৯৯ এবং ২৩,৯৯৯ টাকায়। ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের সক্ষমতা এতে না থাকলেও, এই ফোনের অন্য সব ফিচার নোট-৩০ প্রো-র মতোই।

ঢাকাটাইমস/২৬জুলাই/কেআর/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :