উৎসবমুখর নগরে শতাধিক তোরণ

খুলনা জেলা আ.লীগে ডজন প্রার্থী, মহানগর সভাপতি পদে একক

সোহাগ দেওয়ান, খুলনা
| আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:২০ | প্রকাশিত : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:১৬

খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন (কাউন্সিল) ঘিরে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা এলাকায় প্যানা পোস্টারে সয়লাব হয়ে গেছে। শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন রাস্তায় ইতোমধ্যে শতাধিক তোরণ (গেট) নির্মাণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) খুলনার সার্কিট হাউজ মাঠে জেলা ও নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সার্কিট হাউজ মাঠে নৌকার আদলে মঞ্চ তৈরি হচ্ছে। সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন দলের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সম্মেলনে জেলা সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট এম এম মুজিবর রহমান ও সাবেক মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দের নাম শোনা যাচ্ছে। সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে ইচ্ছুক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুজিৎ কুমার অধিকারী, বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল, অপর সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা-৬ আসনের সাংসদ মো. আকতারুজ্জামান বাবু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা অসিত বরণ বিশ্বাস, উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খান।

মহানগরের সভাপতি পদে শুধু বর্তমান সভাপতি ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেকের নাম শোনা যাচ্ছে। আর সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান ছাড়াও সদর থানা অওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি সাইফুল ইসলাম, নগর যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সরদার আনিছুর রহমান পপলু, বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আশরাফুল ইসলাম প্রার্থী।

কাউন্সিল সফল করার জন্য নগরীর ওয়ার্ড পর্যায়ে ব্যাপক তোড়জোড় চলছে। গোটা শহর এলাকা এখন উৎসবমুখর। তবে গেল ৩০ নভেম্বরের মধ্যে নগরীর সব কটি ওয়ার্ডের সম্মেলন সম্পন্ন করতে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা থাকলেও ২৬টির সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। বাকি রয়েছে ১০টি।

জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রতিটি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ে চলছে প্রস্তুতিমূলক সভা। তবে ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে জেলার ৯টি উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন করার নির্দেশনা থাকলেও শুধু পাইকগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন করা হয়েছে। বাকি ৮টি উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের পর অনুষ্ঠিত হবে বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।

২০১৪ সালের ২৯ নভেম্বর নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে তালুকদার আব্দুল খালেক সভাপতি এবং মিজানুর রহমান মিজান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। আর ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হারুনুর রশীদ সভাপতি এবং এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালের ২৬ জুলাই মোস্তফা রশিদী সুজার মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী আব্দুল হাদি। একই বছর তিনি মৃত্যুবরণ করলে এরপর থেকে অ্যাডভোকেট সুজিৎ কুমার অধিকারী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

ঢাকাটাইমস/৮ডিসেম্বর/মোআ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :