‘পোলাপানরে কিছু দিতে পারি নাই, ঈদ কই ক্যামনে?’

কাজী রফিক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ মে ২০২১, ১৪:৪১ | প্রকাশিত : ১৪ মে ২০২১, ১৪:৩০

মনা মিয়ার বয়স চল্লিশের কাছাকাছি। জীবিকার তাদিগে রংপুর থেকে ঢাকায় এসে চালান রিকশা। স্ত্রী আর দুই ছেলে মেয়ে নিয়ে থাকেন কামরাঙ্গীর চরে। গত পাঁচ বছর ধরে ভালো-মন্দ মিলিয়ে এভাবেই দিনাতিপাত করছেন মনা মিয়া।

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হলে জীবিকায় টান পড়ে মনা মিয়ার। রিকশা চালিয়ে আগে তার আয় ভালো হলেও করোনার কারণে নানা বিধিনিষেধের মধ্যে আয় কমে আসে। অবস্থা এমন দাড়িয়েছে একদিন রিকশা না চালালে মনা মিয়ার ঘরে উনুন জ্বলে না।

ঈদের দিন বেলা ১১টার দিকে শাহবাগ মোড়ে অলস বসেছিলেন মনা মিয়া। কথা হয় এ প্রতিবেদকের সঙ্গে। সকালে রিকশা নিয়ে বের হয়ে ভাড়া মেরেছেন হাতে গোনা।

‘আজ নাকি ঈদ মামা? কইতে পারি না তো। ঈদ আমাগো জন্য আসে নাই। ঈদ হইলে তো নতুন কাপড় কিনতাম। পোলাপানরে কিনা দিতাম। পারি নাই তো। তাইলে আজই ক্যামনে ঈদ?’ — বলছিলেন মনা মিয়া।

তার ভাষ্য, ঘরে চুলায় আগুন জ্বালাবার সাধ্য নেই। জমানো বা বাড়তি টাকা নেই। নতুন পোশাক তো দূর, পুরনো পোশাকের অবস্থাই খারাপ। তার বা স্ত্রীর জন্য কিছু কিনতে না পারলেও দুঃখ নেই। তবে দুটি ছেলে মেয়েকেও কিছু কিনে দিতে না পারায় তার মন ভার। যে কারণে আজ যে ঈদ সেটাই মানতে পারছেন না মনা মিয়া।

ঢাকাটাইমসকে মনা বলেন, ‘ঈদ গরিবের নয়, ঈদ পয়সাওয়ালাদের। গরিবের আবার ঈদ কিসের মামা? ঈদ আপনাগো। এই দিনে আমগো কয় টাকা বেশি ইনকাম হতো আগে। এবার তাও নাই। কেউ কেউ নিজে থেকে কিছু দেয় সেটাই আনন্দ।’

(ঢাকাটাইমস/১৪মে/কারই/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :