অবশেষে অনশন ভাঙছেন অ্যালেক্সি নাভালনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০২১, ২২:২৯

রাশিয়ার প্রধান বিরোধী নেতা হিসেবে পরিচিত অ্যালেক্সি নাভালনি অনশন ভাঙার ঘোষণা দিয়েছেন। ২৪ দিন ধরে অনশন চালানোর পর শুক্রবার খাবার গ্রহণে সম্মত হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের এই সমালোচক।

অনশন ভাঙার কয়েক ঘণ্টা আগে কারাগারে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা তাকে জীবন ও স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য খাবার খেতে অনুরোধ করেন। গত ৩১ মার্চ থেকে নাভালনি কারাগারে চিকিৎসা সেবার দাবিতে অনশন শুরু করেন।

ইন্সটাগ্রাম পোস্টে নাভালনি লিখেছেন, চিকিৎসকরা তাকে দু’বার দেখে গেছেন এবং ‘অবস্থার উন্নতির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি অনশন শেষ করছেন। নাভালনি বলেন, চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় দাবিগুলো আমি এখনই তুলে নিচ্ছি না। আমার হাত এবং পায়ের বিভিন্ন অংশ অনুভূতিশূন্য হয়ে যাচ্ছে। তাই আমি বুঝতে চাচ্ছি এটি কী এবং এর চিকিৎসা কীভাবে হয়। এ কারণে আপাতত অনশন থেকে বের হয়ে আসছি।

এর আগে রাশিয়ার কারাবন্দি এই নেতাকে অনতিবিলম্বে অনশন ভাঙার আহ্বান জানান তার চিকিৎসকেরা। তা না হলে তিনি মারা যেতে পারেন বলে সতর্ক করেন তারা। নাভালনির পাঁচজন চিকিৎসক এক বিবৃতিতে বলেন, ২০ এপ্রিল নাভালনির যেসব স্বাস্থ্যগত পরীক্ষা (মেডিকেল টেস্ট) হয়েছে, তার ফলাফল দেখার সুযোগ তাদের হয়েছে। যদি সামান্য সময়ের জন্যও নাভালনির অনশন অব্যাহত থাকে, তাহলে দুঃখজনকভাবে তিনি শিগগিরই মারা যেতে পারেন।

৪৪ বছর বয়সী নাভালনি রাশিয়ার একজন সুপরিচিত বিরোধী নেতা। রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের কট্টর সমালোচক এই নেতা বর্তমানে রাশিয়ার কারাগারে আছেন। পিঠে তীব্র ব্যথা ও পায়ের অসাড়তার জন্য পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা না পেয়ে গত ৩১ মার্চ থেকে কারাগারে অনশন শুরু করেন তিনি।

গত বছরের আগস্টে রাশিয়ার দুর্নীতি বিরোধী নেতা নাভালনিকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। সাইবেরিয়ার টমসক শহর থেকে উড়োজাহাজে মস্কোয় ফিরছিলেন তিনি। যাত্রাপথে উড়োজাহাজে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তাকে বহনকারী উড়োজাহাজ সাইবেরিয়ার ওমস্কে জরুরি অবতরণ করে। সেখানকার একটি হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। তিনি কোমায় চলে যান। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য জার্মানির বার্লিনে নেওয়া হয়। সেখানে তিনি ধীরে ধীরে সেরে ওঠেন। চিকিৎসা শেষে জার্মানি থেকে ক্রেমলিনের হুমকি উপেক্ষা করে গত ১৭ জানুয়ারি জার্মানি থেকে দেশে ফেরেন নাভালনি। বিমানবন্দরেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অর্থ আত্মসাতের পুরোনো একটি মামলায় গত ফেব্রুয়ারি মাসে নাভালনিকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এই দণ্ডকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিহিত করেছেন নাভালনি।

বিষক্রিয়ার শিকার হয়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা নাভালনির পরিবার, চিকিৎসক, আইনজীবী ও সহযোগীরা বেশ কিছুদিন ধরে বলে আসছেন, তার স্বাস্থ্যের অবস্থা ভালো নয়। সম্প্রতি রাজধানী মস্কোর পূর্বের ভ্লাদিমির অঞ্চলের একটি হাসপাতালে নাভালনির স্বাস্থ্যগত পরীক্ষা করা হয়। এই পরীক্ষা ও তার ফলাফলে নাভালনির চিকিৎসকেরা বলছেন, নাভালনির কিডনি ও স্নায়ুব্যবস্থার যে সমস্যা, তাতে তিনি আর অল্প সময়ও অনশন চালালে মারা যেতে পারেন। জীবন ও স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য নাভালনিকে অনতিবিলম্বে অনশন থামানো উচিত।

(ঢাকাটাইমস/২৩এপ্রিল/কেআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :