মুক্তিপণের টাকা নিতে গিয়ে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কিশোর নিহত

যশোর প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ০৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:২৪ | প্রকাশিত : ০৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:০৮

যশোরের মণিরামপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে বিল্লাল হোসেন (১৬) নামে এক কিশোর নিহত হয়েছেন। তিনি স্কুলছাত্র অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত বলে দাবি করেছে পুলিশ।

স্কুলছাত্রকে অপহরণের পর মুক্তিপণের টাকা নিতে গিয়ে আটক হয়েছিলেন তিনি। বুধবার ভোরে মণিরামপুরের নেহালপুর সড়কের কামালপুর জোড়া ব্রিজের কাছে বন্দুকযুদ্ধে তিনি মারা যান। 

নিহত বিল্লাল মণিরামপুরের খেদায়পুর গ্রামের মোস্তফা হোসেনের ছেলে। 

মনিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম ঢাকা টাইমসকে জানান, গত ৬ জানুয়ারী একটা ছেলে শিশু অপহরণ হয়েছিলো৷ অপহরণকারীরা শিশুটির পরিবারের নিকট ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে৷ শিশুটির পরিবার দাবিকৃত টাকা দিতে রাজি হয়৷ বিষয়টি তারা  পুলিশে জানালে পুলিশ মোবাইল ট্রাকিং করে অপহরণকারীদের শনাক্ত করে৷ 

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনসার উদ্দিন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি  জানান, নিহত বিল্লাল গত ৬ জানুয়ারি রবিাবর মনিরামপুরের গোপালপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র তারিফ হোসেনকে (৯) অপহরণ করে। এরপর তিনি তার পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন।

দাবিকৃত মুক্তিপণের টাকা মঙ্গলবার দুপুরে কেশবপুরের একটি বিকাশের দোকানে আনতে যায় বিল্লাল। এ সময় স্কুলচাত্র তারিফের মামা কেশবপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় বিল্লালকে আটক করে।

পরে  তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাতে মণিরামপুরের নেহালপুর সড়কের কামালপুর জোড়া ব্রিজের কাছ থেকে তারিফের লাশ উদ্ধার করতে যায় পুলিশ। এ সময় বিল্লালের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে বিল্লাল নিহত হয়।

পরে ওই ব্রিজের নিচ থেকে তারিফের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত তারিফ ও বিল্লালের লাশ যশোর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি শর্টগান ও একটি গুলি উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

ঢাকা টাইমস/০৯ জানুয়ারি/প্রতিবেদক/ওআর

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :