পরপর বিএনপির দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর ওপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২০, ২০:১০ | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০২০, ২০:০৬

ঢাকা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে রাজনৈতিক মাঠ তত উত্তপ্ত হচ্ছে। প্রচারণার ১২তম দিনে গাবতলীতে বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের ওপর হামলার পরদিন বুধবার দলটির দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

দক্ষিণখান এলাকায় অতর্কিত হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ঢাকা উত্তরের ৫০ নং ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী দেওয়ান মো. নাজিমুদ্দিন। অপরদিকে উত্তরের ১৮ নং ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী শরিফউদ্দিন জুয়েলে ও তার সমর্থকদেরও ওপর হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান, সন্ধ্যায় দক্ষিণখান এলাকায় মো. নাজিমুদ্দিনের ওপর হামলায় প্রায় ২০জন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের কর্মী-সমর্থক আহত হয়েছেন। আহতদের ভর্তি করা হয়েছে উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে। আহতদের অভিযোগ স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ওপর হামলা করেছেন।

এদিকে হামলার খবর শুনে সেখানে ছুটে যান ঢাকা উত্তরের বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তিনি প্রার্থীসহ আহতদের সবার সঙ্গে কথা বলেন। তাদের সান্ত¦না দেন এবং পাশে থাকার কথা বলেন।
জানা গেছে, কাউন্সিলর প্রার্থী দেওয়ান নাজিমুদ্দিন তার ওয়ার্ডে গণসংযোগ করে চলে আসার পর তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। 

কাউন্সিলর প্রার্থী নাজিমুদ্দিনের সঙ্গে হাসপাতালে থাকা আহত একজন ছাত্রদল নেতা অভিযোগ করে বলেন, দক্ষিণখান থানা ছাত্রলীগের সভাপতি বাপ্পীসহ ১০ থেকে ১৫ জন আমাদের ওপর হামলা করে। বাঁশ দিয়ে বেধড়ক পেটায়। নাজিমুদ্দিন ভাই পরিচয় দিয়ে বলেছেন আমি প্রার্থী আমাকে মারবেন না। কিন্তু তার ওপরও হামলা করেছে।

এর আগে বিকালে উত্তরের ১৮ নং ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী শরিফউদ্দিন জুয়েলে ও তার সমর্থকদেরও ওপর হামলা হয়েছে। এতে জুয়েলসহ ১১ নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

বুধবার বিকালে শাহজাদপুর কনফিডেন্স টাওয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ উপস্থিত থাকলেও তারা নিরব ভূমিকা পালন করে বলে অভিযোগ করেছেন প্রার্থী জুয়েল।
জুয়েলে অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগের কাউন্সিল প্রার্থী জাকির হোসের বাবুল এর নেতৃত্বে গণসংযোগ থেকে এ হামলা চালানো হয়।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, হামলার সময় পুলিশ উপস্থিত ছিল, কিন্তু তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। পুলিশ প্রহরায়ই এ হামলা চালানো হয়েছে। পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালানো হয়। গণসংযোগে হামলার পর দুর্বৃত্তরা বিএনপির নেতাকর্মীদের বাসা-বাড়িতে হামলা চালায়।

(ঢাকাটাইমস/২২জানুয়ারি/বিইউ/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :