এমসি কলেজে দলবেঁধে ধর্ষণ: আরো তিন আসামি গ্রেপ্তার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১৮ | প্রকাশিত : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১৪

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে এক গৃহবধূকে `দলবেঁধে ধর্ষণ‘ মামলায় আরো তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

গ্রেপ্তাররা হলেন- ছাত্রলীগ নেতা শাহ মাহাবুবুর রহমান রনি, রবিউল ইসলাম ও অর্জুন।

রবিবার রাতে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জের নিজামপুর এলাকা থেকে মাহবুবুর রহমান রনিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব, নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জ থেকে রবিউলকে গ্রেপ্তার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ, মাধবপুরের ধর্মঘর থেকে অর্জুনকে গ্রেপ্তার করে সিলেটের গোয়েন্দা পুলিশ।

সিলেট র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার এএসপি ওবাইন ও হবিগঞ্জ জেলা পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

গ্রেপ্তার মাহবুবুর রহমান রনি হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে। রবিউল ইসলাম সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের বাসিন্দা।

এদিকে সকালে হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে অর্জুন লস্কর ও সুমানগঞ্জের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে প্রধান আসামি সাইফুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন। এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।

আসামিরা হলেন- সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার উমেদনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে তারেকুল ইসলাম তারেক, হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি, জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্কর, সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের রবিউল ইসলাম ও কানাইঘাটের গাছবাড়ি গ্রামের মাহফুজুর রহমান মাসুম।

(ঢাকাটাইমস/২৮সেপ্টেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :