আল মাহমুদ উৎসব-২০২২ ও সম্প্রীতির কবিতা পাঠ, টানা এক ঘোর

ফারুক আফিনদী
| আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪৫ | প্রকাশিত : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১৬

আল মাহমুদ। নামেই কী সমীহ জাগে। সে যদি উৎসব হয়, সেতো এক ঘোরের বিষয়। সেইটাই ঘটল যেন সম্প্রতি বিশ^সাহিত্য কেন্দ্রে। বাংলা কবিতার রাখাল রাজা আল মাহমুদ স্মরণে ‘কবি আল মাহমুদ উৎসব ও সম্প্রীতির কবিতা পাঠ’ আয়োজন করে ‘কবি ও কবিতা’। দীর্ঘদিন সময় ও সুযোগ মিলে যাওয়ায় অংশ নিতে পেরেছিলাম প্রাণপ্রতিমা কবিতার আয়োজনে।

দিনটি কবে না-ই বলি। সময়টার কথা না বললেই নয়। তখন বিকাল। চারটা-পাঁচটা। উৎসব শুরু হয় সকালেই। কিন্তু রুটিন জীবন ভেদ করে যাওয়া হয়নি উদ্বোধন পর্বে। সব কাজ সেরে যখন যাই, তখন প্রাণারামের বিকাল। একটুখানি বসি। একটু বের হই। এরপর চা-বিরতিতে বাইরে আসি। যোগ দিই ওপারের কবি অগ্রজ সুনীল মাজির সঙ্গে। সঙ্গে আরও কয়েকজন ভারতীয় কবি। অল্প বিস্তর আলাপ চলে সুনীলদার সঙ্গে। এর পর ছবি তোলা। আবার অনুষ্ঠানস্থলে এসে বসা।

আমি কবিতা পড়ব, কিন্তু কখন? আমার ইচ্ছা সন্ধ্যালগ্নে। আমি অপেক্ষা করি সন্ধ্যার। হলের জানালার কাচে লাল আলো এসে পড়ছে। এটা বিকাল-আমি ভাবি। আর অপেক্ষা করি সন্ধ্যার। সন্ধায় আমি কবিতা পাঠ করতে ভালোবাসি। সময় যায় আর আমি অপেক্ষায় থাকি। মনে ইচ্ছা পোষণ করি, সন্ধ্যার আগে যেন ‘ফারুক আফিনদী’ এই নামটি ডাকা না হয়।

সময় যেতে থাকে। এর পর একসময় ডাক আসে আমার। তখনও কাচে লাল আলো। এটা বিকাল- ভাবি আমি। কিঞ্চিত অসন্তুষ্টি নিয়ে বলি, সন্ধ্যা না হতেই...। যখন কবিতা পড়ে নেমে আসি, তখন রাত নয়টা পেরিয়ে যায়। অনেক পরে বুঝতে পারি, সন্ধ্যা পেরিয়ে গেছে অনেক আগে। টানা চার ঘণ্টা একটা ঘোর। কবিতার প্রেমে এরকম ঘোর বহুদিন সৃষ্টি হয়নি।

২. বাংলা কবিতার রাখাল রাজা আল মাহমুদ স্মরণে আয়োজিত এ উৎসব আলোকিত করেন ভারতের বাংলা ভাষাভাষি ২২ জন কবি। দুই দেশের ২৩৪ জন কবির যৌথ কাব্যউচ্চারণে মুখরিত বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে পরম শ্রদ্ধায় প্রদান করা হয় দুই দেশের তিন কবিকে ‘আল মাহমুদ পদক’। ২০২২ সালের জন্য এ পদকে ভূষিত হন কবি মাহমুদ কামাল, কবি সৌমিত বসু (ভারত) এবং কবি জাকির আবু জাফর।

(বাঁ থেকে) কবি সৌমিত বসু, কবি মাহবুব হাসান, কবি জাহিদুল হক, কবি শাহীন রেজা, কবি মাহমুদ কামাল, কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কবি শাহীন রেজার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বরেণ্য কবি জাহিদুল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি মাহবুব হাসান, কবি সৌমিত বসু এবং কবি মাহমুদ কামাল। প্রধান আলোচক ছিলেন কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন।

কবি হাসান হাফিজের সভাপতিত্বে শুরু হওয়া কবিতাপাঠ পর্বের ১৫টি সেশনে সভাপতি ও প্রধান অতিথি ছিলেন নৃপেন চক্রবর্তী (ভারত), শান্তিময় মুখোপাধ্যায় (ভারত), কবি সরকার মাহবুব, কবি কামার ফরিদ, কবি সুনীল মাজি (ভারত), কবি মাহমুদ হাফিজ, কবি ভবেশ বসু (ভারত), কবি কামরুল হাসান, কবি ইন্দ্রজিৎ ভট্টাচার্য (ভারত), কবি মুজতবা আহমেদ মুরশেদ, কবি কানাইলাল জানা (ভারত), কবি মিলু শামস, কবি জুয়েল মাজহার, কবি দিলদার হোসেন, কবি মানসী কীর্ত্তুনীয়া (ভারত), কবি রোকেয়া ইসলাম, কবি ফেরদৌস সালাম, কবি সায়েজ বদরুল, কবি দারা মাহমুদ, কবি পুলক হাসান, কবি সরকার মাসুদ, কবি মুস্তফা হাবীব, কবি ক্যামেলিয়া আহমেদ, কবি জাকির আবু জাফর, কবি স. ম. শামসুল আলম, কবি সৈয়দ নুরুল হুদা রনো, কবি হাসিদা মুন, কবি জামসেদ ওয়াজেদ, কবি শান্তা মারিয়া এবং কবি হুমায়ুন কবীর ঢালী।

কবি আবিদ আজমের কণ্ঠে আল মাহমুদ রচিত গান দিয়ে শুরু এবং শেষ হওয়া আয়োজনে ভারতের কবিদের মধ্যে কবিতা পাঠ করেন কবি সৌগত প্রধান, দেবাশীষ মল্লিক, ইন্দ্রানী দত্ত পান্না, সুরঙ্গমা ভট্টাচার্য, রাখহরি পাল, অংশুমান চক্রবর্তী, সন্দীপ সাহু, বিমল মন্ডল, বিপ্লব চক্রবর্তী, শুভঙ্কর দাশ, গার্গী সেনগুপ্ত, নূপুর মুখার্জি, সর্বানী ঘড়াই, পারুল কর্মকার, স্মিতা চক্রবর্তী, কৃষ্ণা বন্দোপাধ্যায় প্রমুখ।

বাংলাদেশি কবিদের মধ্যে আবদুল বাতেন, হাসান মাহমুদ, শামীমা চৌধুরী, নাহিদা আশরাফী, তাহমিনা কোরাইশী, তৌফিক জহুর, নুর কামরুন্নাহার, ফাতিমা তামান্না, জায়েদ হোসাইন লাকী, ফরিদ ভূইয়া, ফারুক আফিনদী, রফিক হাসান, শাহীন চৌধুরী, গাজী গিয়াসউদ্দিন, পারভীন শাহনাজ, জাহানারা বুলা, মুহম্মদ আশরাফুল ইসলাম, মুশতাক মুকুল, জামিল জাহাঙ্গীর, রমজান বিন মোজাম্মেল, শিমুল আজাদ, মোজাফ্ফর বাবু, চন্দনকৃষ্ণ পাল, কবিতা কস্তা, তাহমিনা শিল্পী, সৌমিত্র দেব, জোহরা আকতার, শামীম আরা, তিথি আফরোজ, জেবুননেসা হেলেন, শেলী সেলিনা, অসীম কুমার ঘোষ, রনি অধিকারী, মাহবুব শওকত, জান্নাত তায়েবা, মাশরুরা লাকী, আবদুর রাজ্জাক, শিউলী সিরাজ, মিজান ফারাবী, বাবলী খান, অনন্ত রিয়াজ, গোলাম রব্বানী টুপুল, রাজিয়া সুলতানা, এজাজ সানোয়ার, জিয়া হক, শাহিদা ইসলাম, কুসুম তাহেরা, নিলুফা জামান, শ্যামলী খান, রফিক লিটন, কামরুজ্জামান কায়েম, আলম শামস, আশরাফ মির্জা, কামরুজ্জামান, সাঈদ তপু, তারেক মাহমুদ, পথিক সবুজ, মনিরুজ্জামান পলাশ, মাহফুজ রিপন, ক্যাথরিনা হীরা, স্নিগ্ধা নীলিমা, সালামুজ্জামান, হাবিবা খানম প্রমুখ।

সঞ্চালনায় সহযোগিতা করেন কবি কামরুজ্জামান। অনুষ্ঠান পরিকল্পনা ও বিন্যাসে ছিলেন কবি পলি রহমান, তাকে সহযোগিতা করেন পথিক সবুজ, সাঈদ তপু এবং নুরুল আবছার।

(ঢাকাটাইমস/১৫সেপ্টেম্বর/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত