গাজীপুর সদর উপজেলায় নৌকা জয়ী

গাজীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইম
| আপডেট : ১৮ জুন ২০১৯, ২১:১৬ | প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৯, ২১:০১

গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী অ্যাডভোকেট রীনা পারভিন জয়ী হয়েছেন।

মঙ্গলবার দিনভর ভোটগ্রহণ শেষে গণনার পর এ ফল ঘোষণা করা হয়। মোট ৫০টি কেন্দ্রের প্রাপ্ত  ফলাফলে নৌকা প্রতীকের অ্যাডভোকেট রীনা পারভিন পেয়েছেন ২৩ হাজার ৮৬৫ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি নেতা ইজাদুর রহমান মিলন ঘোড়া প্রতীকে ভোট পেয়েছেন ৩৮০৭ ভোট। অবশ্য ভোট গ্রহণ শুরুর দুই ঘণ্টার মাথায় নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি ইজাদুর রহমান।

এছাড়া, ভাইস চেয়ারম্যান পদে রিয়াজ উদ্দিন পেয়েছেন ১৪ হাজার ৩১ ভোট এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা সরকার ১৭ হাজার ৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। 

সকালে পিরোজালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন আওয়ামী লীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট রিনা পারভিন। তিনি মাকে সঙ্গে নিয়ে এ ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট প্রদান করেন। এসময় তিনি বলেন, ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হচ্ছে। স্বচ্ছ ভোট গ্রহণ হওয়ায় নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা ইজাদুর রহমান মিলন ভোট দিতে যান বিকেবাড়ি কেন্দ্রে। এ সময় তিনি নিজের ভোট নিজে দিতে পারেননি এমন অভিযোগ করেন। সকাল ১১টার দিকে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন ইজাদুর। এজেন্টদের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ করে গণতন্ত্রের কবর রচনা হয়েছে এমন মন্তব্য নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি। এ সময় তিনি পুনর্নির্বাচনেরও দাবি করেন।

এছাড়া বিকালে চশমা প্রতীকের স্বতন্ত্র ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ভোটারদের ভয়ভীতি ও পেশী শক্তি ব্যবহার করে প্রভাবিত করা হচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

তবে এসব অভিযোগ ও ভোট বর্জনের ঘোষণা ছাড়া কোন মারামারি বা অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি কোন কেন্দ্রে।

ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও নেতাকর্মী ও প্রার্থীদের আনাগোনায় মুখর ছিল কেন্দ্র গুলো। বিকাল ৫টার পর শুরু হয় ভোট গণনা। সন্ধ্যায় সদর উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে বেসরকারিভাবে কেন্দ্র প্রাপ্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ফলাফল ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. আছলাম।

নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে প্রশাসন। কেন্দ্রে কেন্দ্রে র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ও অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়। এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন ও তিনজন নারী প্রার্থী ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বি করেন। ৫০টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার ১ লাখ ১৭ হাজার ৪৮৫ জন। সব গুলো কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকাটাইমস/১৮জুন/ইএস

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :