‘ইরানের উন্নতিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভূমিকা রয়েছে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৯, ০৮:৫৮

ন্যানো প্রযুক্তিতে ইরান বিশ্বে ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইরানের বিজ্ঞান, গবেষণা ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী মানসুর গোলামি। এছাড়া দেশটির বৈজ্ঞানিক ও প্রযুক্তিগত উন্নতিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভূমিকা রয়েছে বলেও জানান তিনি। মঙ্গলবার এক বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন মানসুর গোলামি।

মানসুর বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ইরানের উন্নয়ন ও অগ্রগতি অব্যাহত রয়েছে। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও নয়া প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে। এ কারণে ইরান ন্যানো প্রযুক্তিতে বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় স্থান করে নিতে পেরেছে। ইরান ২০২২ সালের মধ্যে ন্যানো প্রযুক্তির পণ্যের রপ্তানি ১০০ কোটি ডলারে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

ইরানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী আরও বলেন, গতবছর  ইরান বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে ন্যানো প্রযুক্তির পণ্য রপ্তানি করেছে। বায়োটেকনোলজি ও স্টেম সেল প্রযুক্তির ক্ষেত্রেও ইরান বিশ্বের শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে।

তিনি বলেন, বিশ্ব এখন ইরানকে বৈজ্ঞানিক ক্ষেত্রে সামর্থ্যবান একটি দেশ হিসেবে গণ্য করে। এক্ষেত্রে ইরানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মানসুর বলেন, ইরানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বর্তমানে ৩৫ হাজার বিদেশি ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করছে। ইরান মুসলিম দেশগুলোর পাশাপাশি অন্যান্য দেশের ছাত্র-ছাত্রীদেরকেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়ার সুযোগ দিচ্ছে।

পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়ার পর তাদের ওপর সকল মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। এতে বেশ চাপের মুখে থেকেও ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে ইরান।

ঢাকা টাইমস/১৯জুন/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :