ঠাকুরগাঁওয়ে অজ্ঞাত রোগে পাঁচজনের মৃত্যু

ঠাকুরগাঁও প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:০২ | প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:১৩

ঠাকুরগাঁওয়ে একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে স্থানীয়দের মাঝে।

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নে ভান্ডারদহ মরিচপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর আশপাশের লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে গেছেন। মারা যাওয়া ওই পরিবারটির কাছে ভিড়ছেন না কেউ।

চিকিৎসকদের ধারণা, একটি অজ্ঞাত ভাইরাসের কারণে এমন মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নে ভান্ডারদহ মরিচপাড়া গ্রামের আবু তাহের (৫৫) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। পরে গত বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) আবু তাহেরের একমাত্র মেয়ে মরিয়মের স্বামী  ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া ইউনিয়নের  কুজিশহর ঘুরনগাছ গ্রামের হাবিবুর রহমান ছুটু (৩৫) মারা যায়।

ওই দিন সকালে ৯টার দিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাপাতালে ছুটুর  মৃত্যু হয়। তার মারা যাওয়ার কিছুক্ষণ পর হাবিবুর রহমানের স্ত্রী হোসনে আরা বেগম (৪৫) হৃদরোগের ক্রিয়া বন্ধ  হয়ে  মারা যায়।

তাদের মৃত্যুর শোক কাটতে না কাটতে আবু তাহেরের দুই ছেলে ইউসুফ আলী (২৭) ও মেহেদী হাসান (২৪ ) , এক পুত্রবধূ ও এক নাতনী ওই অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে  স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি হন।

গতকাল রবিবার সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নেয়ার পথে ইউসুফ মারা যায় এবং মেহেদী  রংপুর মেডিকেলে  চিকিৎসাধীন অবস্থায়  ওইদিন রাতে মারা যায়।

এদিকে ইউসুফের স্ত্রী কোহিনুর বেগম তার একমাত্র কন্যা সন্তান থাকলেও তারাও একই রোগে আক্রান্ত হয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

রবিবার বিকালে তাদের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর একজন আছেন আবু তাহেরের মেয়ে মরিয়ম বেগম। তিনি বিদেশ ফেরত হাবিবুর রহমানের স্ত্রী।

ওই বাড়ি থেকে নিরাপদ দুরত্বে অবস্থান করছেন স্থানীয়রা।

তাদের আশঙ্কা, আবু তাহেরের  জামাই ৬ বছর দুবাইয়ে ছিলেন। ৬ মাস পূর্বে তিনি সেখান থেকে  দেশে  ফেরেন। তিনি বিদেশ থেকে ওই ভাইরাসের জার্ম বহন করে নিয়ে এসেছেন বলে দাবি এলাকাবাসীর।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসাব্বেরুল হক জানান, আমি মোবাইল ফোনে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি এটি ব্রেইনের ভাইরাস। আমরা বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, আমি খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফিরোজ জামান জুয়েলকে বিষয়টি দেখার জন্য বলেছি।  তিনি দুপুরে মৃত্যুবরণ করা ইউসুফ আলীর প্রেসক্রিপশন সংগ্রহ করেছেন।  কী কারণে এমন ঘটনা ঘটছে, বিশেষজ্ঞ ছাড়া আপাতত বলা যাচ্ছে না।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডা. খায়রুল কবির জানান, ইনন্সেপফালিটিস রোগে আক্রান্ত হয়ে এ পাঁচজনের মৃত্যুবরণ হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ঢাকায় বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। তারা আগামীকালের মধ্যে এসে বিষয়টি পর্যবেক্ষণসহ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে। তারপরেই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

ঢাকাটাইমস/২৫ফেব্রুয়ারি/ওআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত